নয়াদিল্লি: ব্যারোমিটারের পারদ বলছে তখন রাজধানীতে তাপমাত্রা ৩.৭ ডিগ্রি৷ রবিবারের সকালে কার্যত দৃশ্যমানতা কমের ফলে বিপাকে পড়ল নয়াদিল্লি৷ ঘন কুয়াশায় মোড়া ছিল রাজধানীর সকাল৷ তবে বেলা গড়ানোর সঙ্গে পরিস্থিতির খুব একটা বদল দেখা গেল না৷

স্বাভাবিকভাবেই এই পরিস্থিতির প্রভাব গিয়ে পড়ল বিমান উড়ান ও ট্রেন চলাচলে৷ পাঁচটি আন্তর্জাতিক বিমান ও ১৬টি অন্তর্দেশীয় বিমানের উড়ান পিছিয়ে দেওয়া হয়েছে৷ নয়াদিল্লির ইন্দিরা গান্ধী আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে এই বিমানগুলির উড়ানের কথা ছিল৷

তবে শুধু দিল্লিই নয়, বেঙ্গালুরুর কেম্পেগৌড়া আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরেও ছিল রবিবার দিনভর একই ছবি৷ প্রায় ২৯টি বিমানের উড়ান পিছিয়ে দেওয়া হয়েছে৷ সূত্রের খবর, অনির্দিষ্টকালের জন্য বিমানের উড়ান পিছিয়ে দেওয়ায় রীতিমত সমস্যায় পড়েন যাত্রীরা৷ সোশ্যাল মিডিয়ায় শুরু হয় হইচই, অভিযোগ জানানোর পালা৷

অমৃতসর বিমানবন্দরে প্রায় ১৩টি বিমান কুয়াশার কারণে দেরিতে ছেড়েছে৷ পাতিয়ালাতে দৃশ্যমানতা ছিল ২৫ মিটারেরও কম৷ একই কারণে ট্রেন চলাচলও বিপর্যস্ত হয়ে পড়ে৷ দেশ জুড়ে প্রায় ১৩১টি ট্রেন বাতিল বলে ঘোষণা করা হয়৷ ৬টি ট্রেন অত্যন্ত দেরিতে ছাড়ে৷

মৌসম ভবন জানাচ্ছে পাঞ্জাব, হরিয়ানা, চণ্ডীগড়, দিল্লি, উত্তর প্রদেশ, বিহার, ছত্তিশগড়, ঝাড়খণ্ড, পশ্চিমবঙ্গ ও ওডিশায় আগামী ৩-৪দিন একই পরিস্থিতি বজায় থাকবে৷ আগামী ২-৩ দিনে দুই ডিগ্রি তাপমাত্রা কমতে পারে উত্তর পশ্চিম, পশ্চিম, মধ্য ও পূর্ব ভারতে৷