তিবিলসি: ১৫ বছর পর বিশ্বকাপে ফিরেও জয় পেলেন বিশ্বনাথন আনন্দ৷ রবিবার মালয়েশিয়ার ইও লি থিয়ানের বিরুদ্ধে সহজেই জয় পেলেন পাঁচবারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন৷ অন্য একটি ম্যাচে হেরে গিয়েছেন পি হরিকৃষ্ণ৷

আরও পড়ুন: দেড় দশক পর বিশ্বকাপের হাতছানি আনন্দের

৪৭ বছরের ভারতীয় দাবাড়ু বিশ্বকাপ জিতেছেন ২০০০ (চিন) ও ২০০২ (হায়দরাবাদ)৷ কিন্তু ২০০৭-এ বিশ্ব চ্যাম্পিয়নশিপ জেতার পর আর বিশ্বকাপে খেলার প্রয়োজন হয়নি আনন্দের৷ ১৫ বছর পর বিশ্বনাথন আনন্দের সামনে বিশ্বকাপের জয়ের হাতছানি৷সেই উপলক্ষ্যে প্রথম ম্যাচ জিতেই শুরু করলেন কিংবদন্তি দাবাড়ু৷মালয়েশিয়ান প্রতিদ্বন্দ্বী তাঁকে কোনও সময়ই বিপদে ফেলতে পারেননি৷অন্যদিকে হরিকৃষ্ণ এদিন নিজের চেনা ছন্দের ধারে কাছেও যেতে পারেননি৷কিউবার ভিদাল গঞ্জালেজের বিরুদ্ধে কালো ঘুটি নিয়ে শুরু করেছিলেন অন্ধ্রের এই দাবাড়ু৷শুরুতে পেট্রোফ ডিফেন্স নিয়ে ড্র করলেও শেষ দিকে এই চালই বিপদে ফেলে দেয় তাঁকে৷অন্য ভারতীয় তারকাদের মধ্যে সম্প্রতি চতুর্থ ভারতীয় দাবাড়ু হিসেবে এলো রেটিংয়ে ২৭০০ মার্ক পার করা বিদিত গুজরাথি প্যারাগুয়ের নেরুজ দেলদাগোর বিরুদ্ধে ড্র করেছেন৷

আরও পড়ুন: কাসপারভের সঙ্গে ড্র করলেন আনন্দ

দ্বিতীয় রাউন্ডে আনন্দকে খেলতে হবে গ্র্যান্ড মাস্টার ভারুজান অ্যাকোবিয়ানের বিরুদ্ধে৷ এর পরই আসল পরীক্ষা আনন্দের৷ তৃতীয় রাউন্ডে তাঁকে খেলতে হবে ইংল্যান্ডের এক নম্বর মাইকেল অ্যাডামসের সঙ্গে৷ পরের রাউন্ডে আনন্দের প্রতিদ্বন্দ্বী হিকারু নাকামুরা৷ গত মাসে সিঙ্গুফিল্ড কাপে যুগ্মভাবে দ্বিতীয় স্থান অর্জন করেন আনন্দ৷

আরও পড়ুন: আনন্দের হাতেই টেবিল টেনিস ট্রফির উদ্বোধন

১২৮জন খেলোয়াড় অংশ নিয়েছে এই নক-আউট টুর্নামেন্টে৷আনন্দ ছাড়াও বিশ্বকাপে অংশ নিয়েছেন বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন এবং এক নম্বর ম্যাগনাস চার্লসেন, গতবারের চ্যাম্পিয়ন সের্জি কার্জাকিন, রুসলান পোনোমারিভ এবং ভ্লাদিমির ক্রামনিক৷