ঢাকা: কোরবানির ঈদকে ঘিরে বিভিন্ন উগ্র ইসলামি সংগঠনের তরফে ভারত বিরোধী যে কোনওরকম উস্কানিমূলক প্রচারে নজর রাখছে বাংলাদেশ পুলিশের গোয়েন্দা বিভাগ।

সতর্ক রয়েছে ঢাকা মহানগর পুলিশের গোয়েন্দা শাখা (ডিবি)। এর পাশাপাশি নাশকতা রুখতে থাকছে ৫ স্তরের নিরাপত্তা বলয়। নমাজের জন্য বিভিন্ন কেন্দ্রীয় প্রার্থনা অনুষ্ঠানে মোতায়েন হয়ছে বিরাট রক্ষীবাহিনি।

ভারতের জম্মু-কাশ্মীর থেকে স্বায়ত্তশাসনের আইনটি তুলে নেওয়ার পর থেকে এই এলাকা জুড়ে বিক্ষিপ্ত অশান্তি ছড়িয়েছে। এই পরিস্থিতির মাঝে বাংলাদেশের কিছু ইসলামি সংগঠন লাগাতার ভারত বিরোধী অবস্থান ও মন্তব্য করে যাচ্ছে। কোরবানির ঈদের অনুষ্ঠান ঘিরে তেমনই কিছু বার্তা গেলে প্রশাসন কড়া ভূমিকা নেবে।

আরও পড়ুন : ৩৭০ ধারা বিলোপের পর কাশ্মীরি মেয়েদের নিয়ে ‘রসিকতা’ হরিয়ানার মুখ্যমন্ত্রীর

ইসলামি আন্দোলন বাংলাদেশ, জামাত ইসলামি ও তাদের শাখা সংগঠন ইসলামি ছাত্র শিবিরের নেতা কর্মীদের প্ররোচনামূলক বার্তা দেওয়া থেকে বিরত থাকার আবেদন করেছেন ব়্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটেলিয়ন (ব়্যাব) মহাপরিচালক বেনজীর আহমেদ। তিনি বলেন, কোনও অবস্থাতেই বাংলাদেশ সরকার তার প্রতিবেশী রাষ্ট্রের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে বিশেষ করে সেই দেশ বিরোধী কোনও মন্তব্য বরদাস্ত করবে না।

ঢাকা মহানগর পুলিশ জানায়, রাজধানীতে দেশের সর্ববৃহৎ ঈদ জামাতে জাতীয় ঈদগাহ এবং বায়তুল মোকাররমে পাঁচ স্তরের নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।

ঈদগাহে প্রবেশের সময় নিরাপত্তার স্বার্থে জায়নামাজ ও ছাতা ছাড়া সঙ্গে কিছুই আনতে পারবেন না মুসল্লিরা। তল্লাশির পর সবাইকে ঈদগাহে প্রবেশ করতে দেওয়া হবে।

আরও পড়ুন: একটাও বুলেট চলেনি কাশ্মীরে, সাফ জানাল পুলিশ

কাশ্মীরের পরিস্থিতি নিয়ে বাংলাদেশের ইসলাম ধর্মীয় সংগঠনগুলি প্রকাশ্যেই ক্ষোভ দেখাতে শুরু করেছে। বিভিন্ন নেতারা আগেই ভারত বিরোধী মন্তব্য করেছেন। আশঙ্কা ঈদের নমাজের পরেই সেরকম বার্তা ছড়িয়ে দেওয়ার কৌশল রয়েছে।

সোশ্যাল সাইটে নজরদারি চলছে। সম্প্রতি পদ্মা সেতু তৈরির জন্য পিলার তৈরিতে হাজারে হাজারে শিশুর মাথা লাগবে বলে গুজব ছড়ানো হয়। এর জেরে অনেকে ভীত হয়ে পড়েন। পরে পুলিশের সাইবার সেল তার বিরুদ্ধে পাল্টা প্রচারে নামে।

ঈদ উপলক্ষে সেইরকম গুজব ও উস্কানি রুখতেও তৎপর প্রশাসন। বাংলাদেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান জানিয়েছেন, প্রতিবেশী দেশের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে নাক গলাবে না সরকার। কিন্তু সেই দিকে গভীর লক্ষ্য রাখা হচ্ছে।