চেন্নাই: ১৯৭৮ সালে মাত্র সাতটি জাহাজ নিয়ে ইন্ডিয়ান কোস্ট গার্ড তার সফর শুরু করেছিল৷ আইসিজি-র ৪১তম প্রতিষ্ঠা দিবস পালিত হল চেন্নাইয়ে এর হেডকোয়ার্টার কোস্ট গার্ড রিজিয়নে৷ ১ ফেব্রুয়ারি প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ট্যুইট করে শুভেচ্ছাও জানান এই প্রতিষ্ঠা দিবস উপলক্ষ্যে৷ ইন্ডিয়ান কোস্ট গার্ড সম্পর্কে কিছু গুরুত্বপূর্ণ তথ্য রইল আপনাদের জন্য-

পড়ুন: ৯০০০ মর্টার শেল ছুঁড়ে পাকিস্তানের কোমর ভাঙল ভারতীয় সেনা

১) ইন্ডিয়ান প্যারামিলিটারি ফোর্সের অংশ না হলেও, আইসিজি ভারতের আর্মড ফোর্সের অঙ্গ, এবং প্রাথমিক কর্তব্যের মধ্যে, দুর্নীতি, অবৈধ কাজ, পাচারের বিরুদ্ধে পদক্ষেপ নেওয়া থেকে শুরু করে উদ্ধার কার্য, তল্লাশি কাজ, সামুদ্রিক পরিবেশে ভারসাম্য ধরে রাখা অন্যতম৷

২) বিশ্বের চতুর্থ বৃহত্তম কোস্ট গার্ড হল এই আইসিজি৷

পড়ুন: নতুনরূপে সাফল্যের সঙ্গে আকাশে উড়ল SARAS এয়ারক্রাফট

৩) নৌবাহিনীর থেকে আইসিজি-র জাহাজ আলাদা৷

৪) সামুদ্রিক দূষণ নিয়ন্ত্রণের পাশাপাশি পরিবেশ সংরক্ষণের কাজও করে আইসিজি৷

৫) মৎস্যজীবীদের রক্ষার কাজও করে আইসিজি৷ দেশের মধ্যে কোনও বিদেশী মৎস্যজীবী ঢুকছে কিনা তাও নজরে রাখে আইসিজি৷

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.