মালদহ: সালিশি সভায় ধারালো অস্ত্রের আঘাতে জখম হন তৃণমূলের অঞ্চল সভাপতি সহ পাঁচ জন৷ ঘটনাটি ঘটেছে কালিয়াচক থানার আকন্দবেড়িয়া গ্রাম পঞ্চায়েতের রামনগর গ্রামে৷ ঘটনায় দুই জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে৷ আহতরা হলেন বিমল চন্দ্র মণ্ডল (৫৫), রাধিকা মণ্ডল (৪৮), লিপিকা মণ্ডল (২৭), শীতলা মণ্ডল(৬০), ও তারেশ মণ্ডল (২৮)৷

জানা গিয়েছে, দুই প্রতিবেশী গোপাল মণ্ডল ও বিবেক মণ্ডলের মধ্যে ঝামেলা মেটানোর জন্য সালিশ সভার আয়োজন করা হয়৷ মহদিপুর এলাকায় বিবেক মণ্ডলকে মারধর করে গোপাল মণ্ডল সহ কয়েকজন। তা নিয়ে সালিশি সভা ডাকা হয় গ্রামে। সেখানে আকন্দবেড়িয়া গ্রাম পঞ্চায়েতের তৃণমূল সভাপতি বিমল চন্দ্র মণ্ডল তার কয়েকজন আত্মীয়কে নিয়ে সেই সালিশিতে যোগ দেন।

অভিযোগ, সালিশি সভায় গোপাল মণ্ডলকে এই ঘটনায় দোষী সাব্যস্ত করা হয়। এরপরই গোপাল মণ্ডল ও তার ভাই কৃষ্ণ মণ্ডল ধারালো অস্ত্র নিয়ে বিমল চন্দ্র মণ্ডল সহ পাঁচ জনের উপর চড়াও হয় বলে অভিযোগ। ধারালো অস্ত্রের কোপে গুরুতর জখম হন বিমল চন্দ্র মণ্ডল, রাধিকা মণ্ডল, লিপিকা মণ্ডল, শীতলা মণ্ডল ও তারেশ মণ্ডল।

তাদের উদ্ধার করে ভরতি করা হয় মালদহ মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে৷ আশঙ্কাজনক অবস্থায় লিপিকা মণ্ডলকে স্থানান্তরিত করা হয় কলকাতার এক বেসরকারি হাসপাতালে। অন্যদিকে রাধিকা মণ্ডল, বিমল চন্দ্র মণ্ডল, ও শীতলা মণ্ডলের চিকিৎসা চলছে মালদহ মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে। পুলিশ ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে।