স্টাফ রিপোর্টার, তমলুক: গণধোলাইয়ের ঘটনায় উত্তপ্ত হয়ে উঠল মহিষাদল৷ এক মহিলার এটিএম জালিয়াতির ঘটনায় এক যুববকে গণধোলাইয় দেয় স্থানীয়রা৷ পাশাপাশি মোট পাঁচ জনকে পুলিশের হাতে তুলে দেয় স্থানীয়রা৷

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, মহিষাদল থানার বসানচকের বাসিন্দা সুচিত্রা পাত্র নামে এক মহিলা মহিষাদলের রথতলাতে একটি রাষ্ট্রায়ত্ত (এসবিআই) ব্যাংকের এটিএম থেকে টাকা তুলতে আসে। সেই সময় তার কিছু অসুবিধা হওয়ায় টাকা তোলার সময় এক ব্যক্তি তাকে সাহায্য করে। চার হাজার টাকা ও এটিএম কার্ডটি মহিলার হাতে তুলে দেয় ওই ব্যক্তি। মহিলা বাড়ি ফেরার কিছু সময়ের মধ্যে দফায় দফায় টাকা তোলার ম্যাসেজ মোবাইলে ঢুকতে থাকে। মোট ২১ হাজার টাকা তুলে নেওয়া হয়েছে বলে অভিযোগ।

সুচিত্রা দেবীর সুতাহাটার চৈতন্যপুর শাখার অ্যাকাউন্ট। তাই তিনি তার এটিএমটি কার্ডটি বন্ধ করার জন্য চৈতন্যপুর রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংকের শাখায় গেলে ব্যক্তি চিনতে পারে। ধরে ফেলে চিৎকার করতে থাকে। পরে উত্তেজিত জনতার হাতে তুলে দেয়। জনতার হাতে গণধোলাই খায় ওই ব্যক্তি। পরে সুতাহাটা থানার পুলিশ এসে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যায়।

সুতাহাটা থানা পুলিশের তরফ থেকে জানা যায় ধৃত ব্যক্তির নাম সুবির সেখ, বাড়ি রায়দিঘি। পরে সুতাহাটা থানার পুলিশ ধৃত ব্যক্তিকে মহিষাদল থানার পুলিশের হাতে তুলে দেয়। মহিষাদল থানার পুলিশ তদন্তে নেমে ঘটনায় জড়িত আরও চারজন ও একটি প্রাইভেট গাড়ি আটক করে৷ তাদের জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করছে পুলিশ। দীর্ঘ কয়েকদিন ধরে মহিষাদলের বিভিন্ন এটিএমে গ্রাহকরা প্রতারনার শিকার হচ্ছে। এই চক্র কতদিন ধরে কাজ করছে তা সমস্ত কিছু জানার চেস্টা করছে মহিষাদল থানার পুলিশ।