স্টাফ রিপোর্টার,বারাকপুর: গত কয়েক দিন ধরেই অজানা জন্তু ঘিরে আতঙ্ক ছড়িয়েছে কোন্নগরে। এরই মাঝে বুধবার একটি আমবাগানের ভিতর থেকে বাঘরোলের মৃতদেহ উদ্ধারের ঘটনায় নতুন করে চাঞ্চল্য ছড়াল এলাকায়। বুধবার সকালে ঘটনাটি ঘটেছে, খড়দহ থানার দোপেড়ে অঞ্চলের একটি আমবাগানে।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, এদিন সকালে নির্জন ঐ আমবাগানের ভিতরে মৃত অবস্থায় প্রাণীটিকে পড়ে থাকতে দেখেন স্থানীয় বাসিন্দারা। সঙ্গে সঙ্গে তাঁরাই খবর দেন খড়দহ থানায়। এদিকে ততক্ষনে সম্পূর্ণ বাঘের মত দেখতে অচেনা প্রাণীটিকে দেখতে ঘটনাস্থলে ভিড় জমান স্থানীয় বাসিন্দারা। যদিও বিলুপ্তপ্রায় ঐ প্রাণীটি কি ভাবে মারা গেল সেই বিষয়ে নিরুত্তর ছিলেন গ্রামবাসীরা। মনে করা হচ্ছে, রাতের অন্ধকারে কোনও চোরাশিকারি বাঘরোলটিকে মেরে ফেলে দিয়ে গিয়েছে। যদিও, গোটা বিষয়টি খতিয়ে দেখে ঘটনার তদন্তে নেমেছে বনদফতর।

এদিকে পুলিশের কাছ থেকে খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে উপস্থিত হন, বন দফতরের কর্মীরা। তাঁরা এসে মৃত প্রাণীটিকে উদ্ধার করে নিয়ে যায়।

মৃত প্রাণীটিকে বাঘরোল বা ‘ফিসিং ক্যাট’ বলে দাবি করেছেন বন দফতরের কর্মী অমল কুমার মিত্র।
তিনি আরও জানিয়েছেন, ঠিক কি কারণে লুপ্ত প্রায় ঐ প্রাণীটি মারা গেল তা এখনই বলা যাচ্ছে না। তবে মৃতদেহটি ময়না তদন্তে পাঠানো হয়েছে। সেই রিপোর্ট হাতে আসলেই বোঝা যাবে মৃত্যুর সঠিক কারণ।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.