হলদিয়া: মাছ চাষ নিয়ে একের পর এক অভিনব উদ্যোগ নিচ্ছে হলদিয়া ব্লক মৎস্য দফতর৷ মাছ চাষে আরও বেশি করে মানুষ যাতে এগিয়ে আসেন সেটিই লক্ষ্য করে এগোচ্ছে ব্লক প্রশাসন৷ যেমন শুক্রবার হলদিয়া ব্লকে পালিত হল মৎস্যচাষি দিবস৷

আরও পড়ুন: মাছ চাষে একের পর এক অভিনবত্ব হলদিয়ায়

এই উপলক্ষ্যে হলদিয়া ব্লক মৎস্য দফতর বিভিন্ন কর্মসূচি নিয়েছে৷ ব্যানার, ফেস্টুন নিয়ে বর্ণাঢ্য র‍্যালি, মৎস্যবিভাগে অগ্রগতি ও দফতরের বিভিন্ন সাফল্য নিয়ে আলোচনা সভা, মাছ চাষিদের সঙ্গে মত বিনিময় তো হয়ই৷ সঙ্গে মাছ চাষে মানুষকে আরও উৎসাহী করা, সফল চাষিদের শুভেচ্ছা স্মারক প্রদান করা হয়৷

মাছ চাষের উপর ক্যুইজ, ছাত্র-ছাত্রীদের জন্য বিনামূল্যে মাগুর পোনা বিতরণ ছিল এই অনুষ্ঠানে উপরি পাওনা৷ সুমিয়া মাইতি, লক্ষ্মী সিং, বীথি সামন্ত, রুবিনা খাতুন, সামসুর মালিক, রুমান্না খাতুনরা বিনামূল্যে মাগুর মাছ পেয়ে দারুণ খুশি৷ স্কুল পড়ুয়া, স্বনির্ভরগোষ্ঠীর মহিলা, স্থানীয় জনপ্রতিনিধি, ব্যাঙ্কের আধিকারিক, মৎস্যচাষি, মৎস্যজীবি, মাছ বিক্রেতা থেকে ব্যবসায়ী সকলেই উপস্থিত ছিলেন এই অনুষ্ঠানে৷

আরও পড়ুন: ক্যানিং থেকে গ্রেফতার তিন অস্ত্র কারবারী

হলদিয়া ব্লকের মৎস্যচাষ সম্প্রসারণ আধিকারিক সুমনকুমার সাহু ছিলেন অনুষ্ঠানের সঞ্চালক৷ উপস্থিত ছিলেন হলদিয়া পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি খুকুমনি সাহু, হলদিয়ার বিডিও রাজর্ষি নাথ, মৎস্য দফতরের প্রাক্তন যুগ্ম অধিকর্তা শৈলেন বিশ্বাস প্রমুখ৷

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.