শংকর দাস, বালুরঘাট: তৃতীয় লিঙ্গ ও রূপান্তরকামীদের চিকিৎসার জন্য রাজ্যে প্রথম বালুরঘাট জেলা হাসপাতালে আলাদা ওয়ার্ডের উদ্বোধন হল। বালুরঘাটে জেলা হাসপাতালের চার শয্যা বিশিষ্ট বিশেষ এই বিভাগের উদ্বোধন করেন মুখ্যস্বাস্থ্য আধিকারিক ডাঃ সুকুমার দে। প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বালুরঘাট আদালতের সিজেএম ও ডিএলএসএ’র ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক সুব্রত ঘোষাল এবং হাসপাতালের সুপার ডাঃ তপন বিশ্বাস।

জেলা প্রশাসন সূত্রে জানা গিয়েছে, দক্ষিণ দিনাজপুর, গঙ্গারামপুর ও বালুরঘাট দুই মহাকুমায় তিনশো’রও বেশি তৃতীয় লিঙ্গের মানুষ রয়েছেন। তাঁদের কেউ অসুস্থ হলে হাসপাতালগুলির মহিলা না পুরুষ ওয়ার্ডে রেখে চিকিৎসা করা হবে তা নিয়ে প্রায়ই সমস্যা দেখা দিত।

অবশেষে বালুরঘাট জেলা হাসপাতালের জরুরি বিভাগের কাছেই বিশেষ এই ওয়ার্ড চালু করল জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ। চিকিৎসার সমস্ত রকম পরিকাঠামো সহ সম্পূর্ণ আলাদা ভাবে নিজেদের জন্য এই ওয়ার্ড পেয়ে খুশি তৃতীয় লিঙ্গের মানুষজন। রাজ্যের অন্যান্য জেলাগুলিতেও এই ধরনের ওয়ার্ড দ্রুত চালুর আবেদন জানিয়েছেন তাঁরা।

এদিনের অনুষ্ঠানে হাজির তৃতীয় লিঙ্গের বনী রায় জানিয়েছেন যে, এতদিন তাঁদের কেউ অসুস্থ হলে সরকারি হাসপাতাল গুলিতে চিকিৎসা করাতে গিয়ে খুবই সমস্যায় পড়তে হত। তৃতীয় লিঙ্গ হওয়া সত্বেও চিকিৎসার করাতে হাসপাতাল গুলিতে পরিষেবা নিতে গেলে মহিলা অথবা পুরুষদের ওয়ার্ডেই তাঁদের ভর্তি রাখা হয়। অবশেষে বালুরঘাট হাসপাতালে আলাদা ওয়ার্ডের ব্যবস্থা হওয়ায় তাঁরা খুবই খুশি বলে জানিয়েছেন তিনি।

ট্রানসজেন্ডার ওয়ার্ডের উদ্বোধন করে মুখ্যস্বাস্থ্য আধিকারিক ডাঃ সুকুমার দে বলেন, ”সুপ্রীম কোর্ট আগেই তৃতীয় লিঙ্গদের জীবন যাত্রায় সমমান নিয়ে নানা নির্দেশ দিয়েছিল। এই জেলায় প্রায় ৩০০ জন তৃতীয় লিঙ্গ রয়েছেন। তাঁরা অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হলে তাঁদের পুরুষ ও মহিলা ওয়ার্ডে রেখে পরিষেবা দেবার ক্ষেত্রে বেশ সমস্যায় পড়তে হত। সম্প্রতি, জেলা আইনি পরিষেবার পক্ষ থেকে তাঁদের চিকিৎসা পরিষেবার জন্য আলাদা ভাবে ওয়ার্ড খোলার অনুরোধ জানানো হয়। আর তাকে মান্যতা দিয়েই জেলা হাসপাতালে এই ট্রানসজেন্ডার ওয়ার্ড খোলা হল।”