ফাইল ছবি

হাওড়া: প্রশাসক বসছে হাওড়া পুরনিগমে। পরে সব পৌরসভায় একসঙ্গে করা হবে ভোট। বুধবার সন্ধ্যায় হাওড়ায় এক অনুষ্ঠানে এসে এমনই জানালেন পুরমন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম। বুধবার সন্ধ্যায় হাওড়া শহরে পৌর নিগমের একাধিক প্রকল্পের উদ্বোধন করতে এসে পুরমন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে একথা বলেন।

তিনি বলেন, “আমরা সরকার থেকে ঠিক করেছি হাওড়া পুরসভার যেহেতু আগামী ১০ তারিখ মেয়াদ শেষ হচ্ছে সেহেতু এখানে প্রশাসক নিয়োগ করা হবে। এবং তারপর সব পৌরসভায় একসাথে ভোট করা হবে।” এদিন ‘জল ধরো জল ভরো’ প্রকল্পের প্রসঙ্গে প্রশ্ন করা হলে ফিরহাদ হাকিম বলেন, “হাওড়াতে এই প্রকল্পে উল্লেখযোগ্য কাজ হয়েছে। ইতিমধ্যেই ৫৬টা পুকুরের সৌন্দর্যায়ন হয়েছে। এখনও ২০টি পুকুরের কাজ চলছে। প্রায় ২০০ টি পুকুর হাওড়ায় পরিষ্কার করা হয়েছে।”

তিনি আরও বলেন “জল ধরো জল ভরো প্রকল্প মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সারা বাংলার প্রকল্প। আগে হাওড়ায় যারা পুর প্রশাসন চালাতেন তাদের এনিয়ে কোনও খেয়াল ছিল না। বর্তমান পুরবোর্ড ক্ষমতায় আসার পর এই প্রকল্পে উল্লেখযোগ্য কাজ হয়েছে। হাওড়ায় উল্লেখযোগ্য কাজ হয়েছে। এখন হাওড়া শহর অনেক পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন হয়েছে। জলাশয়গুলো পরিষ্কার করা হয়েছে। জলাশয়ের ধারে সৌন্দর্য্যায়ন হয়েছে। গাছ লাগিয়ে সবুজ করা হয়েছে।”

বুধবারের অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন মাননীয় সমবায় মন্ত্রী অরূপ রায়। বিশেষ অতিথি রূপে উপস্থিত ছিলেন সাংসদ প্রসূন বন্দ্যোপাধ্যায়। উপস্থিত ছিলেন বিধায়ক ব্রজমোহন মজুমদার, বরো-৫ এর চেয়ারম্যান পার্থজিৎ ঘোষ এবং হাওড়া পুরসভার কমিশনার বিজিন কৃষ্ণ। উল্লেখ্য, এদিন সন্ধ্যায় ‘জল ধরো জল ভরো ‘প্রকল্পের অধীন হাওড়া পুরসভার ৪৭ নম্বর ওয়ার্ডের অন্তর্গত ‘কোম্পানি পুষ্করিণী’র নবরূপে সংস্কার, সৌন্দর্যায়ন ও আলোকিতকরণের শুভ উদ্বোধন করেন মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম।