প্রসেনজিৎ চৌধুরী: ইরানের শাহ ঘুরতে এসেছেন ঢাকায়। তখনও অবশ্য পাকিস্তান ভাগ হয়নি। অর্থাৎ পূর্ব পাকিস্তান। শাহ করিম হুসেইনিকে দেখতে লাখো মানুষের ভিড়। শাহ খুশি। তিনি এসব ভালোইবাসেন। আর ভালো লাগে ফুটবলের উন্মাদনা। ঘুরতে এসে তিনি সেই ইচ্ছেতেই ধুনো দিলেন। ব্যাস তৈরি হয়ে গেল আগা খান গোল্ড কাপ টুর্নামেন্টের সূচি। বলা হয়নি, ইরানি শাহের অপর নাম ছিল চতুর্থ আগা খান।

সেই টুর্নামেন্ট শুরু হয় ১৯৫৮ সালে। আর ১৯৬০ সালে প্রথম কোনও ভারতীয় ক্লাব হিসেবে তৎকালীন অবিভক্ত পাকিস্তানের মাটিতেই কেল্লা ফতে করে এসেছিল কলকাতা মহমেডান স্পোর্টিং ক্লাব। সে একেবারে হই হই কাণ্ড। ভারত স্বাধীন হওয়ার পর আগা খান কাপ জয় ছিল মহমেডানের এই সাফল্যই ছিল প্রথম বিদেশের মাটিতে ভারতীয় ফুটবলের সোনালি ঝলক।

আগা খান কাপ আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি পায়। ইরানের শাহের প্রভাবে কৌলীন্যের তকমা লাভ করে। ষাটের ফুটবল দুনিয়ায় ভারতের সাফল্য অনেক। ক্রমে তা সত্তরের দশকের পর থেকে কমতে শুরু করে। আগা খান কাপের ইতিহাস ঘাঁটলে দেখা যাচ্ছে একাধিকবার ঢাকা মোহামেডান ক্লাব এই ট্রফি জয় করেছে। কিন্তু প্রথম ও একমাত্র ভারতীয় দল হিসেবে কলকাতার মহমেডান স্পোর্টিং ক্লাবটির নাম উজ্জ্বল। সাদা-কালো দল। তাদের জার্সিতেই পরিচয়। সময়ের সঙ্গে কমেছে জৌলুশ। কৌলীন্য হারালেও তবুও ময়দানের মাঠের অন্যতম শক্তি।

স্বাধীনতার সাত দশক পরেও যখন ভারতীয় ফুটবলের রাহুর দশা, তখনও এক চিলতে সোনালি ইতিহাস উঁকি দেয় এই মহমেডান তাঁবুতে। স্বাধীন ভারতের প্রথম কোনও দল হিসেবে কলকাতা ফুটবল লিগ চ্যাম্পিয়ন হওয়ার গৌরব রয়েছে মহমেডানের। ফুটবল ইতিহাসে অমলিন মহমেডান। পরাধীন ভারতে তিরিশের দশকটি ছিল স্বাধীনতার আবেগ নিয়ে প্রবল বিপ্লবাত্মক প্রচেষ্টার দশক। সেই প্রচেষ্টায় বারে বারে কলকাতা লিগ চ্যাম্পিয়ন হয়ে আবেগ উসকিয়ে দিয়েছে মহমেডান ক্লাব।

১৯৩৪- ১৯৩৮ এই পাঁচ বছর কলকাতা লিগকে নিজের সম্পত্তি বানিয়েছিল দলটি। এটা যদি একটা ইতিহাস হয়, তাহলে স্বাধীন ভারতের প্রথম লিগ চ্যাম্পিয়ন দল হিসেবে অনন্য নজির তৈরি করেছেন সাদা-কালো জার্সিধারীরা। ১৯৪৮ সালের কলকাতা লিগ অর্থাৎ স্বাধীন ভারতের প্রথম আবেগ তাড়িত ফুটবল টুর্নামেন্ট। সেই লিগ চ্যাম্পিয়ন হয় মহমেডান। ১৮৯১ সালে প্রতিষ্ঠা হয় মহমেডান স্পোর্টিং ক্লাবের। পরে ১৯৩৬ সালে একটি শাখা তৈরি হয় পূর্ব বাংলার প্রাদেশিক রাজধানী ঢাকায়। সেটি ‘ঢাকা মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাব’ নামেই সুপরিচিত। নজির অনন্য থাকে। অবিভক্ত পাকিস্তানের মাঠেই ভারতের মান রেখেছিলেন মহমেডানের বাঘা ফুটবলাররা।

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ