আমেদাবাদ: দীর্ঘ অপেক্ষার পর ভারতের মাটিতে নামল চিনুক হেলিকপ্টার। প্রথম ব্যাচের হেলিকপ্টার পৌঁছে গেল গুজরাতের মুন্দ্রা এয়ারপোর্টে। ভারতীয় বায়ুসেনায় শীঘ্রই যগ দেবে এই চারটি হেলিকপ্টার।

আমেরিকা থেকে ১৫টি হেলিকপ্টার আসবে ভারতে। হেলিকপ্টারগুলি তৈরি করেছে মার্কিন সংস্থা বোয়িং। বর্তমানে ভারত ব্যবহার করে রাশিয়ার তৈরি Mi-17 ও Mi-26 হেলিকপ্টার।

চুক্তি হয়েছিল মোদী ক্ষমতায় আসার পর। লোকসভা নির্বাচনেই আগেই সেই যুদ্ধ হেলিকপ্টার এল ভারতে। কয়েকদিন আগেই ফিলাডেলফিয়ায় ভারতের হাতে আনুষ্ঠানিকভাবে ‘চিনুক’ হেলিকপ্টার তুলে দেয়ে আমেরিকা।

ফিলাডেলফিয়ায় বোয়িং ফেসিলিটি-তে আমেরিকার ভারতীয় রাষ্ট্রদূত হর্ষ শ্রিংলার উপস্থিতিতে সেই চিনুক তুলে দেওয়া হয় ভারতের হাতে। উপস্থিত ছিলেন ভারতের ডিজিএও, এয়ার মার্শাল এ দেব, নিউ ইয়র্কে ভারেতর কনসাল জেনারেল সন্দীপ চক্রবর্তী।

ভিয়েতনাম, আফগানিস্তান কিংবা ইরাক। যে কোনও যুদ্ধেই চিনুক দেখা গিয়েছে যুদ্ধক্ষেত্রে। ১৯৬২ তে প্রথম চিনুক ওড়ানো হয়। এরপর অনেক আধুনিকীকরণ করানো হয়। বর্তমানে বিশ্বের সবথেকে আধুনিক হেলিকপ্টার একটি।

চিনুক বইতে পারে ৯.৬ টন কার্গো, কামান এমনকী সাঁজোয়াগাড়িও। পাহাড়ের উপর থেকে যুদ্ধের জন্য যথেষ্ট উপযোগী এটি। যুদ্ধক্ষেত্র থেকে উদ্ধারকাজ সবক্ষেত্রেই অপরিহার্য চিনুক। এটি ভারতীয় সেনায় অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ একটি সহযোজন। সীমান্তে নানা প্রজেক্টেও কাজে লাগবে চিনুক। সরু উপত্যকা দিয়ে জিনিসপত্র বয়ে নিয়েও যেতে পারবে চিনুক।