নয়াদিল্লি: ফের গুলি চলল দিল্লির জামিয়া মিলিয়া ইসলামিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের গেটে। ঘটনাস্থলে পৌঁছেছে পুলিশ বাহিনী। রবিবার রাতে এই গুলি চালানোর ঘটনা ঘটে।

ছাত্রদের তরফে দাবি করা হয়েছে বিশ্ববিদ্যালয়ের ৫ নম্বর গেটের সামনে এই গুলি চালানোর ঘটনা ঘটে। অজ্ঞাত পরিচয় দুই ব্যক্তি স্কুটি চড়ে এসে গুলি চালায় গেটের সামনে। তাঁদের একজনের গায়ে লাল জ্যাকেট ছিল বলে জানা গিয়েছে। তবে রবিবার রাতের এই ঘটনায় কেউ আহত হননি বলে জানানো হয়েছে পুলিশের তরফে।

উল্লেখ্য, দিল্লিতে বিরাট আকার ধারণ করেছে সিএএ বিরোধী আন্দোলন। আন্দোলনকারীদের ওপরে আঘাতও নেমে আসছে বারবার। শেষ চারদিনে তিনবার বন্দুক নিয়ে হামলা চালানো হয় সিএএ বিরোধী আন্দোলনকারীদের ওপরে। এই ঘটনায় পুলিশের বিরুদ্ধে রীতিমতো প্রশ্ন তুলতে শুরু করেছেন আন্দোলনকারীরা।

আরও পড়ুন – দিল্লিতে CAA বিরোধী আন্দোলনে গুলি: সরানো হল পুলিশ আধিকারিককে

এমনকি দিল্লির শাহিনবাগ ও জামিয়াতে সিএএ বিরোধী আন্দোলনে গুলি চালানোর ঘটনায় কড়া পদক্ষেপ নিয়েছে নির্বাচন কমিশন। পদ থেকে অপসারিত করা হয়েছে সাউথ-ইস্ট দিল্লির ডেপুটি পুলিশ কমিশনার চিন্ময় বিশওয়ালকে।

বৃহস্পতিবার জামিয়াতে রামভক্ত গোপাল নামে এক কিশোর দিল্লি পুলিশের সামনেই নাটকীয় ভঙ্গিতে গুলি চালায়। সেদিন আহত হয়েছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের সাংবাদিকতা বিভাগের ছাত্র স্নাতোকত্বর শাদাব। তাঁর হাতে গুলি লাগে। তার পরে পুলিশের ব্যারিকেড পেরিয়ে তাঁকে হাসপাতালে পৌঁছতে হয়। ‌

রামভক্ত গোপাল নামে ওই নাবালক সেদিন গুলি চালানোর আগে বলছিল, এই নাও আজাদি। মহাত্মা গান্ধীর হত্যা দিবসেই এমন কাণ্ড তাৎপর্যপূর্ণ বলে মনে করা হচ্ছে। ওই কিশোরের সোশ্যাল মিডিয়া থেকে জানা যাচ্ছে, সে গেরুয়া শিবিরের সমর্থক। বিভিন্ন অস্ত্র সমেত গেরুয়া পোশাকে তার ছবি রয়েছে।

অন্যদিকে শনিবার শাহিনবাগের কাছে জশোলা রেড লাইটের কাছে শূন্যে গুলি চালায় এক যুবক। ইন্ডিয়া টিভির সাংবাদিক মিলম শর্মা ঘটনার ভিডিও টুইট করেন। ভিডিওয় দেখা যায়, ওই দুষ্কৃতী বলছে, এই দেশ কারও হিসেবে চলবে না। শুধু হিন্দুদেরই চলবে।