কৃষ্ণনগর: বিজেপি শিবিরের বিরুদ্ধে মারাত্মক অভিযোগ করলেন তৃণমূল নেতা ফিরহাদ হাকিম। রাজ্যে বিজেপি ক্ষমতা পেলে মুসলিমদের টুপি পরে নমাজ পড়তে দেবে না। পদ্ম শিবিরের বিরুদ্ধে এমনই চাঞ্চল্যকর অভিযোগ করেছেন মমতার মন্ত্রী।

শুক্রবার নদিয়া জেলার কৃষোনগরে দলীয় জনসভার হাজির ছিলেন রাজ্যের পুর ও নগরোন্নয়ন মন্ত্রী তথা কলকাতার মেয়র ফিরহাদ হাকিম। সেখানেই দলীয় প্রার্থী মহুয়া মৈত্রের সমর্থনে সভার প্রধান বক্তা ছিলেন ববি। এদিন প্রার্থীর সমর্থনে আয়োজিত মিছিলেও অংশ নেন রাজ্যের মন্ত্রী।

সভায় বক্তব্য রাখার সময়ে বিজেপিকে কড়া ভাষায় আক্রমণ করেন ফিরহাদ হাকিম। তিনি বলেন যে ইউপিতে (উত্তরপ্রদেশ) ছেলে নমাজ পরতে গেলে টুপিটা পকেটে নিয়ে যাওয়ার কথা বলে মা। তাঁর কথায়, “ওই রাজ্যের মায়েরা বলেন যে বজরং দল দেখলে মেরে দেবে। মসজিদে গিয়ে টুপি পরবি।” ফিরহাদ আরও বলেন,”ইউপি-তে টুপি পরে যাওয়া মানা। বজরং দল দেখে নিলে পিটিয়ে মেরে দেবে। দাঁড়ি কেটে ফেলছে মুসলিমরা। উপরওয়ালা ছাড়া কারও কাছে মাথানত করব না”।

সপ্তদশ লোকসভা নির্বাচনের মুখে এই ফিরহাদ হাকিমের সৌজন্যেই ফের শোনা গেল অসহিষ্ণুতার বার্তা। যা নিয়ে বছর চারেক আগে তোলপার হয়েছিল জাতীয় রাজনীতি। এদিন মমতার মন্ত্রী বলেছেন, “ইউপিতে মানুষ বলছে, গরুর চেয়ে মানুষের দাম কম। লিখে নিন, সাধারণ মানুষকে গরু খাওয়ার জন্য মেরে দিয়েছে বজরং দল।”

এই অবস্থায় লোকসভা নির্বাচনে সঠিক প্রার্থীকে ভোট দেওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন ববি হাকিম। মুসলিম সমাজের মানুষদের প্রতি সাবধান বানী দিয়ে তিনি বলেছেন, “এবারের ভোট ইয়ারকি মারার ভোট নয়। আনন্দ করার ভোট নয়। আজকের ভোট মোদী রামের ভোট। কালকে মাথা তুলে থাকতে পারব কিনা, তার ভোট। আমাদের টুপি পরে নামাজ পড়তে দেবে না।”

রাজ্যের মন্ত্রীর মুখের এই বক্তব্য থেকে খুব স্বাভাভিকভাবেই শুরু হয়েছে বিতর্ক। ফিরহাদ হাকিম নদিয়া জেলায় ভোটের প্রচারে বেরিয়ে সাম্প্রদায়িক উস্কানি দিয়েছেন বলে অভিযোগ করেছে বিজেপি। এই বিষয়ে নির্বাচন কমিশনের কাছে ববি হাকিমের বিরুদ্ধে অভিযোগ জানানো হবে বলেও জানানো হয়েছে পদ্ম শিবিরের পক্ষ থেকে।

অন্যদিকে গোমাংস বিক্রি নিয়ে বিজেপিকে কটাক্ষ করেছেন ববি হাকিম। তিনি জানিয়েছেন যে বিফের এক্সপোর্টার কে সঙ্গীত সিং, বিজেপির বিধায়ক। আর এক এক্সপোর্টার শ্রীকান্ত শর্মা পশ্চিম উত্তরপ্রদেশের সহ-সভাপতি। এই অবস্থায় ববির প্রশ্ন, “গরুর মাংস এক্সপোর্ট করছ অসুবিধা নেই। কিন্তু মানুষ খেলে দোষ। কেন গরুর মাংস ব্যান হল?” গোমাংস ব্যবসায়ীদের সুবিধা করে দিতেই বিজেপি নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে বলে জানিয়েছেন ফিরহাদ।