স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: নারদা-কাণ্ডে রাজ্যের পুরমন্ত্রী ফিরহাদ হাকিমকে প্রায় পাঁচঘণ্টা জেরা করল এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট (ইডি)৷ বুধবার দুপুর ২টো নাগাদ সল্টলেকের সিজিও কমপ্লেক্সে ইডি দফতরে হাজিরা দিতে আসেন মন্ত্রী ফিরহাদ৷ প্রায় পাঁচ ঘণ্টা জেরার পরে সন্ধা ৭টা নাগাদ ইডি দফতর থেকে বেরোন তিনি৷

জেরা শেষে বেরিয়ে ফিরহাদ বলেন, ‘‘আমি কোনও অনৈতিক কাজে যুক্ত ছিলাম না, ভবিষ্যতেও থাকব না৷ চক্রান্ত করে ফাঁসানো হচ্ছে৷ বিচার প্রক্রিয়ার মাধ্যমে সত্য সামনে আসবে৷’’ ইডি জেরা শেষে বেরনোর সময় সিজিও কমপ্লেক্সে হাজির ছিলেন বিধাননগর পুরসভার মেয়র সব্যসাচী দত্ত৷

নারদা-কাণ্ডে সিবিআইয়ের সঙ্গেই সমান্তরালভাবে তদন্ত শুরু করেছে ইডি৷ ফিরহাদকে জেরার জন্য প্রথমবার নোটিশ পাঠালে প্রশাসনিক ব্যস্ততার কথা বলে হাজিরা এড়ান তিনি৷ দ্বিতীয় নোটিশ পাঠানোর পরে তিনি আর হাজিরা এড়াননি৷ তবে মঙ্গলবার তিনি সাংবাদিকদের জানিয়েছিলেন যে আপাতত হাজিরা দিতে যাচ্ছেন না৷ বিধানসভা চলছে বলে এখন হাজিরা না দিয়ে ইডি’র কাছে সময় চাইবেন৷ কিন্তু এদিন আইনজীবীকে সঙ্গে নিয়ে আচমকাই ইডি দফতরে চলে আসেন ফিরহাদ৷

নারদা স্টিং অপারেশনের ফুটেজে দেখা গিয়েছে, ছদ্মবেশী সাংবাদিক ম্যাথু স্যামুয়েলের থেকে পাঁচ লক্ষ টাকা ঘুষ নিতে রাজি হয়েছেন৷ তবে টাকার বান্ডিল তিনি নিজে হাতে নেননি৷ তাঁর নির্দেশেই অন্য একজন ম্যাথুর থেকে সেই টাকা নিয়েছেন৷ ওই পাঁচ লক্ষ টাকা ফিরহাদ কি বাবদ নিয়েছিলেন এবং কোথায় সেই টাকা খরচ করেছেন তার হিসেবে চেয়েছে ইডি৷