ফাইল ছবি

সোয়েতা ভট্টাচার্য,কলকাতা:  শহরে ঘটে যাওয়া একাধিক অগ্নিকাণ্ডের জেরে এবার নড়েচড়ে বসেছে দমকল৷ বাগরি মার্কেট থেকে শুরু করে আমরি হাসপাতালের অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা, সব ক্ষেত্রেই আগুন নিয়ন্ত্রণে আনার কাজে কাঁচের দেওয়াল বাঁধা হয়ে দাঁড়িয়েছিল দমকল কর্মীদের কাছে৷ তাই শহরের একাধিক কাঁচের তৈরি বিল্ডিংগুলিকে নোটিস পাঠাল দমকল৷ এই তালিকায় কলকাতা সহ নাম রয়েছে রাজারহাট নিউ টাউনের একাধিক বহুতলেরও৷ এমনকি সল্টলেকের একটি হাসপাতাল কর্তৃপক্ষকেও ধরানো হয়েছে নোটিস৷ দমকল সূত্রে এমনটাই খবর৷

বাগড়ি মার্কেটের ঘটনার পর আর কোনও ঝুঁকি নিতে নারাজ দমকল কর্তারা৷ দমকলের এক কর্তা জানিয়েছেন,” আমরি হোক বা নিউ মার্কেটের সিটি মার্কেটের অগ্নিকান্ড কাঁচের দেওয়াল থাকায় আগুনের উৎস খুঁজতে অনেকটাই সময় নষ্ট হয়৷ যার ফলে আগুন দ্রুততার সঙ্গে বহুতলগুলিতে ছড়িয়ে পরে ”৷

বাগড়ি মার্কেটের অগ্নিকাণ্ডের সময় আরও বড় বিপদের সম্মুখীন হতে হয় দমকলের আধিকারীকদের৷ এই বিল্ডিং এর চতুর্থ তলায় আগুন ছড়িয়ে পড়ার তা নিয়ন্ত্রণে আনতে হিমসিম খেতে হয় দমকলকে৷ কারণ আগুন নিয়ন্ত্রনে আনতে কাঁচের তৈরি দেওয়াল বাঁধার সৃষ্টি করে৷ শেষমেষ কোনও পথ না খুঁজে পেয়ে দমকল কর্মীরা পাশের একটি বিল্ডিং-এ গিয়ে রাবার বুলেট ছুঁড়ে কাঁচ ভেঙে আগুন নিয়ন্ত্রনের কাজ শুরু করে৷ এই ঘটনায় কোনও প্রানহানি না হলেও দমকল আধিকারিকরা বুঝে গিয়েছেন অগ্নিকাণ্ড ঘটলে এই কাঁচের দেওয়াল বিপদ আরও অনেকগুণ বাড়িয়ে দেবে৷ প্রাণহানির আশঙ্কাও বেড়ে যাবে৷

এক দমকল কর্মী জানাচ্ছেন ,”এই ধরনের কাঁচের বহুতলে অগ্নিকাণ্ড ঘটলে উপরের তলাগুনিতে বিপদ সব থেকে বেশি থাকবে৷ এই তলাগুলি থেকে ধোঁয়া বেরনোর জায়গা থাকে না”৷ ন্যাশনাল বিল্ডিং কোড ২০১৬ অনুযায়ী বিল্ডিং- এ কাঁচের ব্যবহার হলে সেই বিল্ডিং-এ অবশ্যই স্মোক এক্সট্র্যাকশন বাধ্যতামুলক৷ তবে এই নিয়মকে বুড়ো আঙুল দেখিয়ে শহরে ঝুঁকি নিয়ে একের পর এক এই ধরনের বহুতল গজিয়ে উঠছে৷

দমকলের এক আধিকারিক জানান,” বেশ কয়েকটি বহুতলকে আমরা নোটিস পাঠিয়েছি৷ শহরজুড়ে আমরা নজরদারি চালাচ্ছি৷ প্রয়োজনে আরও কয়েকটি বিল্ডিংকে এই নোটিস পাঠান হবে”৷ ২০১১ সালের ডিসেম্বরে ঢাকুরিয়ার আমরি হাসপাতালের অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় একই সমস্যায় পড়েছিল দমকল কর্মীরা৷ এই ঘটনায় মৃত্যু হয়েছিল ৮৯ জনের৷ কাঁচ ভেঙে ঢুকতে অনেকটাই সময় পেরিয়ে গিয়েছিল৷ যার জেরে মৃতের সংখ্যা অনেকটাই বেড়ে যায়৷ তবে শুধু নোটিস নয় এই নোটিস পাওয়ার পরে এই বহুতলের কর্তৃপক্ষ যথাযথ পদক্ষেপ নিচ্ছে কিনা সেই দিকেও নজর রাখবে দমকল৷