বার্লিন: নতুন বছরকে স্বাগত জানানোর জন্য ব্যবস্থা করা হয়েছিল ফানুসের। কিন্তু সেই ফানুসই কাল হল। বর্ষবরণের রাতে আগুনে পুড়ে মৃত্যু হল কমপক্ষে ৩০ টি বন্যপ্রাণীর। যার মধ্যে রয়েছে শিম্পাজি, গরিলা ও বাঁদর।

একটি সূত্র জানাচ্ছে, জার্মানির উত্তর পশ্চিম অংশের ক্রেফিল্ড চিড়িয়াখানাতে এই দুর্ঘটনা ঘটে। যখন নতুন বছরকে বরণ করে নিতে সবাই মগ্ন, ঠিক সেই সময় এই আগুন লাগে। চিড়িয়াখানা কর্তৃপক্ষ জানাচ্ছে, তাঁরা হঠাৎই আকাশে লেলিহান আগুনের শিখা দেন। খবর দেওয়া হয় দমকলে।

কিন্তু হনুমান শিম্পাজির খাঁচা আগুনের কবলে পড়ে। আগুনে পুড়ে মৃত্যু হয় কমপক্ষে ৩০ টি বন্যপ্রাণীর। যার মধ্যে রয়েছে শিম্পাজি, গরিলা ও বাঁদর। একটি সূত্র জানাচ্ছে, কেবল মাত্র দুটি গরিলা ছাড়া মৃত্যু হয়েছে অন্য হনুমান ও শিম্পাঞ্জির।

আরও পড়ুন – ‘আমরা আর বাধ্য নই’, আমেরিকাকে ফের অস্ত্র পরীক্ষার হুমকি কিমের

উল্লেখ্য, শিম্পাঞ্জির জায়গাটি মূল চিড়িয়াখানা থেকে খানিকটা দূরে, তাই সবচেয়ে বেশি ক্ষতি হয়েছে ওই প্রাণীদের। চিড়িয়াখানা কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, বানরদের খাঁচায় কোনো প্রাণী বেঁচে নেই।

প্রসঙ্গত, জার্মানির যে শহরে এই চিড়িয়াখানা রয়েছে সেখানে ফানুস ওড়ানো একেবারেই নিষিদ্ধ। তবে বর্ষবরণের রাতে সেই আইন ইমান্য করেই ফানুস ওড়ানো হয়েছিল। এই চিড়িয়াখানাটিতে ছিল ১০০০-এর বেশি প্রাণী। আর বছরে প্রায় ৪ লক্ষ দর্শক ওই চিড়িয়াখানা দেখতে আসে।