ফাইল ছবি

সিউড়ি: হঠাৎ করেই আগুন লাগল তারাপীঠ মন্দির চত্বরে। সোমবার রাত ৯ টা নাগাদ মন্দিরের জেনারেটর রুমে আগুন লেগে যায়। ঘটনায় গর্ভগৃহের কোনো ক্ষতি হয়নি বলে জানা যাচ্ছে।

প্রথমে সেবায়েত ও নিরাপত্তারক্ষীদের নজরে পড়ে ওই আগুন। তৎক্ষণাৎ খবর দেওয়া হয় দমকলে। রামপুরহাট থেকে দমকল গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

উল্লেখ্য, করোনার জেরে ও লকডাউনের প্রভাবে এখন বন্ধ রয়েছে তারাপীঠ মন্দির। ফলে ভক্ত সমাগম হয় না। কিন্তু মন্দিরে নিত্য পূজা চালু রয়েছে। সেই সন্ধ্যারতির পরেই এই আগুন লাগার ঘটনা ঘটে।

সাধারণত এমনি সময় সন্ধ্যের পর থেকেই ভিড় থাকে মন্দিরে। এদিন তেমন পরিস্থিতি হলে হয়তো বিপদ বাড়তে পারত।

সোমবারই সকালে আগুল লাগে কলকাতার ভবানীপুরে একটি বহুতলে। আবাসনের উচ্চতা অনেক বেশি হওয়ায় দমকল কর্মীরা হাইড্রোলিক লেডারে দিয়ে আগুন নেভানোর চেষ্টা করেন৷ বহুতল আবাসনের ১৭ তলায় আগুন দ্রুত ছড়িয়ে পড়ে৷ সতেরো তলায় ১৬/এ ফ্ল্যাটে প্রথম আগুন লাগলেও দ্রুত তা পাশের ফ্ল্যাটেও ছড়িয়ে পড়ে৷

আগুন লাগার খবর পেয়ে প্রথমে নিরাপত্তারক্ষীরা দ্রুত গিয়ে অগ্নি নির্বাপণ যন্ত্র দিয়ে আগুন নেভানোর চেষ্টা করেন৷ কিন্তু আগুনে নিয়ন্ত্রণে আসছে না দেখে, দ্রুত দমকলে খবর দেন নিরাপত্তারক্ষীরা৷ দ্রতু ঘটনাস্থলে পৌঁছয় দমকলের পাঁচটি ইঞ্জিন৷ পরে আরও পাঁচটি ইঞ্জিন আসে৷

তবে দুটি ক্ষেত্রেই কোনও প্রাণহানির খবর পাওয়া যায়নি। লকডাউনের মধ্যে আগুন লাগার ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়ায় এলাকায়।