কোচি: বড়সড় দুর্ঘটনার হাত থেকে বাঁচল ভারতীয় ক্রিকেটার শান্তাকুমারন শ্রীসন্থের পরিবার৷ শনিবার ভোরে কোচিতে শ্রীসন্থের বাড়িতে আগুন লাগে৷ সে সময় টিম ইন্ডিয়ার বিশ্বকাপ জয়ী পেসার বাড়িতে না-থাকলেও ছিলেন তাঁর স্ত্রী ও কন্যা৷ তবে প্রতিবেশীর বিচক্ষণতায় বাড়ি থেকে নিরাপদে বেড়িয়ে আসতে সক্ষম হন ক্রিকেটার স্ত্রী ও মেয়ে৷

শনিবার রাত দু’টোর সময় শ্রীসন্থের কোচির এদাাপল্লির বাড়িতে আগুন লাগে৷ তবে কেউ আহত হননি৷ আগুন লাগার সময় বাড়িতে ছিলেন না শ্রীসন্থ৷ মুম্বইয়ে শুটিংয়ের কাজে ব্যস্ত টি-২০ বিশ্বকাপ জয়ী ভারতীয় পেসার৷ তবে বাড়ির ফার্স্ট ফ্লোরে ছিলেন তাঁর স্ত্রী ভুবনেশ্বরী কুমারী ও চার বছরের মেয়ে সানভিকা৷ তবে স্ত্রী ও মেয়ে দু’জনেই নিরাপদে বাড়ির বাইরে আসতে সক্ষম হয়েছেন৷

আগুন প্রথম বুঝতে পারেন শ্রীসন্থের এক প্রতিবেশি৷ ভারতীয় ক্রিকেটার বাড়ি থেতে ধোঁয়া ও আগুন দেখতে পরে সঙ্গে সঙ্গে ফায়ার বিগ্রেডে খবর দেন৷ সঙ্গে সঙ্গে ফায়ার বিগ্রেডের আধিকারিকরা এগে ভেন্টিলেটরের কাঁচ ভেঙে শ্রীসন্থের স্ত্রী ও মেয়েকে বাইরে বের করেন৷ তারপর আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে৷ খবর পেয়ে দ্রুত বাড়ি ফেরার বিমান ধরেন স্পট-ফিক্সিং কাণ্ড নির্বাসিত বছর তিরিশের ভারতীয় দলের এই ক্রিকেটার৷

শ্রীসন্থের মতে, বাড়ির গ্রাউন্ড ফ্লোরের ড্রয়িং রুমে আগুন লাগে৷ তবে আগুন লাগার সময় স্ত্রী ও মেয়ে ফার্স্ট ফ্লোরে ঘুমিয়ে ছিলেন৷ সিলিং ফ্যানে শর্ট-সার্কিট থেকে আগুন লাগে বলে অনুমান করা হচ্ছে৷ গত মঙ্গলবার সুখবর পান শ্রীসন্থ৷ ২০১৩ আইপিএল স্পট-ফিক্সিং কাণ্ডে তাঁর আজীবন নির্বাসন কমিয়ে আগামী বছরই মুক্ত হচ্ছেন টিম ইন্ডিয়ার এই পেসার৷

অগস্ট, ২০২০ কেরলের এই ডানহাতি পেসারের উপর থেকে স্পট-ফিক্সিং কাণ্ডের নির্বাসন তুলে নেওয়ার নির্দেশ দেন বিসিসিআই-এর অমবাডসম্যান ডিকে জৈন৷ ফলে ফের বাইশ গজে ফিরতে পারবেন ৩৬ বছরের এই পেসার৷ আইপিএল স্পট-ফিক্সিং কাণ্ডে ইতিমধ্যেই ছ’ বছরের নির্বাসন কাটিয়ে ফেলেছেন শ্রীসন্থ৷

অগস্ট, ২০১৩ আইপিএলে স্পট-ফিক্সিং কাণ্ডে শ্রীসন্থ-সহ রাজস্থান রয়্যালসের তিন ক্রিকেটার অঙ্কিত চহ্বাণ ও অজিত চাণ্ডিলাকে আজীবন নির্বাসিত করে বিসিসিআই৷ কিন্তু ১৫ অগস্ট, ২০১৯ বোর্ডের শৃঙ্খলারক্ষা কমিটির অর্ডার বিবেচনা করে সুপ্রিম কোর্ট৷ ৭ অগস্ট সেই অর্ডার পাশ হয়৷

এই অর্ডার প্রসঙ্গে বোর্ডের অমবাডসম্যান ডিকে জৈন বলেন, মিস্টার শ্রীসন্থ এখন তিরিশের শেষ দিকে৷ ক্রিকেটার হিসেবে ওর সেরা সময় চলে গিয়েছে৷ বিশেষ করে এক ফাস্ট বোলার হিসেবে ও ইতিমধ্যে সেরা সময় কাটিয়ে ফেলেছে৷’ অর্থাৎ সাত বছরের নির্বাসন কাটিয়ে ফেরে বাইশ গজে ফিরতে পারবেন কেরলের এই স্পিডস্টার৷

পচামড়াজাত পণ্যের ফ্যাশনের দুনিয়ায় উজ্জ্বল তাঁর নাম, মুখোমুখি দশভূজা তাসলিমা মিজি।