বিধাননগর: বোর্ড মিটিং চলাকালীন বিধাননগর পুরসভায় আগুন লাগার ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে৷ দমকলের তিনটে ইঞ্জিন ঘটনাস্থলে এসে আধ ঘন্টার চেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে৷ হতাহতের খবর নেই৷

পুলিশ সূত্রে খবর, শুক্রবার বিকেল ৪টে নাগাদ পুরসভার তিনতলা থেকে ধোঁয়া বের হতে দেখে পুরসভার কর্মীরা৷ খবর দেওয়া হয় দমকলকে৷ খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে দমকল ও পুলিশ পৌঁছায়৷ যেখান থেকে ধোঁয়া বের হচ্ছিল, সেটি পুরসভার অ্যাসিস্ট্যান্ট ইঞ্জিনিয়ারের দফতর৷

জানা গিয়েছে, পুরসভার থেকে যখন ধোঁয়া বের হচ্ছিল তখন বোর্ড মিটিং চলছিল৷ হাজির ছিলেন পুরসভার মেয়র কৃষ্ণা চক্রবর্তী৷ এছাড়া ডেপুটি মেয়র-সহ কাউন্সিলর ও কর্মীরা৷ তড়িঘড়ি তাদেরকে নামিয়ে আনা হয় । ফাঁকা করে দেওয়া হয় পুরসভা ভবন৷ পরে কাউন্সিলরদের নিয়ে পাঁচ তলায় বোর্ড মিটিং চলে৷

এদিকে খবর পেয়ে কিছুক্ষণের মধ্যেই ঘটনাস্থলে আসে দমকলের তিনটি ইঞ্জিন৷ এবং দমকল মন্ত্রী সুজিত বসু৷ আধঘণ্টার চেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রণে এসেছে বলে দমকলের দাবি৷ তবে আগুন লাগার কারণ জানা যায়নি৷ কিভাবে আগুন লেগেছে তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে৷

গত বছর পঞ্চমীর দিন দুপুরে সল্টলেকের বৈশাখীতে আগুন লেগেছিল। ঘটনাস্থলে দমকলের নয়টি ইঞ্জিন পৌঁছে গিয়েছিল৷ জানা গিয়েছিল,শপিংমলের বিল্ডিংয়ের বেসমেন্টে আগুন লেগেছিল৷

স্থানীয় বাসিন্দারা জানিয়েছিল, চারদিন ধরে এএমপি বৈশাখী শপিং-মলের বেসমেন্টে ওয়েল্ডিংয়ের কাজ চলছিল। সেখানেই রাখাছিল বেশ কয়েকটি বাইক এবং চার চাকা গাড়ি। সেগুলি সবগুলি প্রায় পুড়ে ছাই হয়ে গিয়েছে বলে খবর। প্রায় চল্লিশটি বাইক এবং গাড়ি পুড়ে যায়৷ এছাড়া কালো ধোঁয়ায় ঢেকে গিয়ছিল আশেপাশের এলাকা।

পচামড়াজাত পণ্যের ফ্যাশনের দুনিয়ায় উজ্জ্বল তাঁর নাম, মুখোমুখি দশভূজা তাসলিমা মিজি।