ফাইল ছবি

স্টাফ রিপোর্টার, বাঁকুড়া: ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডে ভস্মীভূত বাঁকুড়ার ‘শিল্প শহর’ হিসেবে পরিচিত বড়জোড়ার প্রায় তিনশো দোকান। বুধবার বিকেলে শহরের বিজয়া ময়দান সংলগ্ন বাজারটিতে অসংখ্য কাপড়, ফল, সব্জী, মুদি খানা সহ বেশ কিছু দোকান মুহূর্তের মধ্যে আগুনের লেলিহান শিখা গ্রাস করে নেয়। লক ডাউনের কারণে গৃহবন্দী মানুষ, দোকান পাটও বন্ধ ছিল। ফলে কোনও কিছু বুঝে ওঠার আগেই সব শেষ।

মায়া মাঝি নামে এক কাপড় ব্যবসায়ী বলেন, প্রায় চার থেকে সাড়ে চার লক্ষ টাকার সামগ্রী পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। এখন কিভাবে সংসার চলবে আর কিভাবেই বা নতুন করে ব্যবসা শুরু করবেন ভেবে পাচ্ছেন না বলে তিনি জানান।

‘সরকারী সাহায্যই এখন ঘুরে দাঁড়ানোর একমাত্র ভরসা’ জানিয়ে ক্ষতিগ্রস্ত ব্যবসায়ী দিব্যেন্দু পাঁজা, শ্রীধর মণ্ডলরা বলেন, লক ডাউনের কারণে বেচাকেনা প্রায় বন্ধ। মাত্র দশ মিনিটের আগুনে সব পুড়ে ছাই হয়ে গেল। এখন কিভাবে সংসার চলবে তারা কিছুই ভেবে পাচ্ছেন না বলে জানিয়েছেন।

এই ঘটনার পর বৃহস্পতিবার সকালে ধ্বংস স্তুপের মধ্যেও কোথাও কোথাও হালকা ধোঁয়া বেরোচ্ছে। শ্মশানের নিঃস্তব্ধতা চারিদিকে। এই মুহূর্তে রাজনীতি ভুলে সবকটি রাজনৈতিক দলের তরফে ক্ষতিগ্রস্ত ব্যবসায়ীদের পাশে দাঁড়ানোর আশ্বাস দেওয়া হয়েছে।

বড়জোড়া ব্লক তৃণমূল সভাপতি অলক মুখোপাধ্যায় বলেন, বিষয়টি রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী, সাংসদ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়কে জানানো হয়েছে। ক্ষতির পরিমান কোটি টাকা ছাড়িয়েছে। এই মুহূর্তে অসহায় ওই সব ব্যবসায়ীদের পাশে কিভাবে দাঁড়ানো যায় সেই চেষ্টা তাঁরা করবেন বলে জানান।

বিজেপির বিষ্ণুপুর সাংগঠনিক জেলার সহ সভাপতি তাপস ঘোষ, বড়জোড়ায় দমকল কেন্দ্র স্থাপনের দাবি জানান। একই সঙ্গে তারাও ক্ষতিগ্রস্তদের পাশে থাকবেন বলে জানিয়েছেন।