পাটনা: নাগরিকত্ব আইনের প্রতিবাদ দেশের বিভিন্ন প্রান্তে। এবার সেই বিক্ষোভের আঁচ বিহারের রাজধানী পাটনাতেও। পাটনার কার্গিলচক এলাকায় পথে নেমে চলে বিক্ষোভ। নাগরিকত্ব আইনের প্রতিবাদে সরব হন আন্দোলনকারীরা। ঘণ্টাখানেক ধরে চলে পথ অবরোধ। বিক্ষোভ তুলতে পুলিশ গেলে উত্তেজনা আরও বাড়ে।

পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষ বেধে যায় আন্দোলনকারীদের। পুলিশের গাড়ি এবং ফাঁড়িতে আগুন ধরানোর অভিযোগ ওঠে আন্দোলনকারীদের বিরুদ্ধে। রাস্তায় টায়ার জ্বালিয়ে চলে পথ অবরোধ। বিক্ষোভকারীদের ছোড়া ইটের আঘাতে বেশ কয়েকজন পুলিশকর্মী জখম হয়েছেন বলে অভিযোগ। অগ্নিগর্ভ পরিস্থিতি সামাল দিতে পুলিশ শূন্যে গুলি চালায় বলেও দাবি কয়েকজনের।

সংশোধিত নাগরিকত্ব আইনের প্রতিবাদে দেশের বিভিন্ন অংশে চলছে প্রতিবাদ, বিক্ষোভ। উত্তর-পূর্বের অসম, ত্রিপুরা, মণিপুরে প্রতিবাদে সরব বিভিন্ন সংগঠন। কেন্দ্রের পদক্ষেপের বিরুদ্ধে রাস্তায় নেমে চলছে প্রতিবাদ-বিক্ষোভ। কখনও রাস্তায় আগুন জ্বালিয়ে কখনও আবার রাস্তায় বসে চলছে অবরোধ। একইসঙ্গে বিক্ষোভের আঁচ রাজধানী দিল্লি ও এরাজ্যেও। গত কয়েকদিন ধরেই এরাজ্যেও চলছে দফায় দফায় প্রতিবাদ বিক্ষোভ। পরপর কয়েকদিন রেল ও পথ অবরোধে চূড়ান্ত দুর্ভোগের শিকার সাধারণ মানুষ।

এবার বিক্ষোভের আঁচ নীতিশ কুমারের রাজ্য বিহারে। রবিবার পাটনার কার্গিলচক এলাকায় নাগরিকত্ব আইনের প্রতিবাদে জমায়েত করেন একদল আন্দোলনকারী। পথে নেমে কেন্দ্রীয় সরকারের বিরুদ্ধে চলে স্লোগান, প্রতিবাদ। প্ল্যাকার্ড হাতে চলে তুমুল বিক্ষোভ। বিক্ষোভের পাশাপাশি প্রধানমনন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী এবং কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের কুশপুতুল পোড়ানো হয়। কেন্দ্রীয় পদক্ষেপের প্রতিবাদে সরব হন আন্দোলনকারীরা।

বিক্ষোভ সামাল দিতে এলাকায় যায় পুলিশ। প্রাথমিকভাবে আন্দোলনকারীদের সঙ্গে কথাবার্তা শুরু করেন পুলিশের আধিকারিকরা। আন্দোলনকারীদের বুঝিয়ে শান্ত করার চেষ্টা করেন পুলিশের কর্তারা। এরই মধ্যে প্রবল বিক্ষোভ শুরু করেন আন্দোলনকারীদের একাংশ। মুহূর্তে পরিস্থিতি অগ্নিগর্ভ হয়ে ওঠে। পুলিশকে লক্ষ করে পাথর ছোড়ারও অভিযোগ ওঠে। জ্বালিয়ে দেওয়া হয় পুলিশের গাড়ি। পুলিশ ফাঁড়িতেও আগুন লাগানোর অভিযোগ ওঠে। পালটা লাঠিচার্জ করে পরিস্থিতি সামাল দেওয়ার চেষ্টা করে পুলিশ।

এদিকে পাটনা পুলিশ সূত্রে খবর, আন্দোলনের নামে হিংসা ছড়ানোর অভিযোগে এফআইআর দায়ের করা হয়েছে। খতিয়ে দেখা হচ্ছে ওই এলাকার সিসিটিভি ফুটেজ। সিসিটিভি ফুটেজ দেখে অভিযুক্তদের চিহ্নিত করার চেষ্টা হচ্ছে। অভিযুক্তদের চিহ্নিত করে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়ার কথা জানিয়েছে পুলিশ।