ফাইল ছবি

কৃষ্ণনগর: দাউ দাউ করে জ্বলছে বাগরি মার্কেট৷ ১৫ ঘণ্টা পার হলেও এখনও নেভানো যায়নি আগুন৷ এইমধ্যে আরও এক অগ্নিকাণ্ডের খবর নদিয়া জেলায়৷ একটি বাজি কারখানায় ভয়াবহ বিস্ফোরণ হয় রবিবার৷ সূত্রের খবর, ঘটনায় মৃত্যু হয়েছে দু’জনের৷ আহত একাধিক৷ তাঁদের রানাঘাট হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে৷

আরও পড়ুন: লন্ডন না হলেও লণ্ডভণ্ড হয়েছে কলকাতা: অধীর

স্থানীয় সূত্রের খবর, নদিয়ার গাংনাপুরে এই বাজি কারখানাটি অবস্থিত৷ এদিন দুপুরে একটি গ্যাস সিলিন্ডার ফেটে গিয়ে ঘটে বিপত্তি৷ বাজি কারখানায় প্রচুর পরিমাণে দাহ্যবস্তু থাকায় মুহূর্তে ছড়িয়ে পড়ে আগুন৷ কারখানা ছাড়িয়ে তা ছড়িয়ে পড়ে সংলগ্ন এলাকায়৷ খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে আসে পুলিশ৷ খবর দেওয়া হয় দমকলেও৷

পুজোর মরশুম৷ বহু শ্রমিক কাজ করছিলেন এই কারখানায়৷ স্বভাবতই এত বড় বিস্ফোরণে জখম হন তাঁরা৷ ইতিমধ্যেই দু’জনের মৃত্যুর খবর শোনা যাচ্ছে৷ আহত একাধিক৷ সকলেই রানাঘাট হাসপাতালে চিকিৎসাধীন৷ কয়েকবছর আগেও নদিয়ার গাংনাপুর সংলগ্ন একটি বস্তির বাজি কারখানায় ভয়াবহ আগুন লাগার ঘটনা ঘটেছিল৷ মৃত্যু হয়েছিল একজনের৷ আহত হয়েছিলেন তিনজন বাজি তৈরির কারিগর৷ তবে এদিনের বিস্ফোরণ আরও বেশি মারাত্মক বলে দাবি এলাকার লোকজনের৷

আরও পড়ুন: ‘নন্দরাম মার্কেটের ঘটনা থেকে ওরা শিক্ষা নেয়নি’

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.