স্টাফ রিপোর্টার, ইসলামপুর: ভোট গণনাকে কেন্দ্র করে অগ্নিগর্ভ পরিস্থিতির সৃষ্টি হল উত্তর দিনাজপুরের চোপড়ায়। চলল গুলি ও বোমার লড়াই। বাস ভাঙচুরের ঘটনাও ঘটল। নিগৃহীত হলেন প্রার্থী ও তাঁদের কাউন্টিং এজেন্টরা।

এরই প্রতিবাদে ঘন্টার পর ঘন্টা বিরোধীদের জাতীয় সড়ক অবরোধে স্তব্ধ হয়ে গেল উত্তর-পূর্ব ভারতের সঙ্গে যোগাযোগ ব্যবস্থা। চোপড়া কলেজের গণনা কেন্দ্রে বিরোধীদের ঢুকতে না দেওয়ার অভিযোগকে ঘিরেই উত্তাল হয়ে ওঠে এলাকা। দুষ্কৃতীদের গুলিতে গুরুতর জখম দুই।

এদিন এই ঘটনাকে ঘিরে পরিস্থিতি উত্তাল হয়ে উঠলে পুলিশ লাঠিচার্জ করার পাশাপাশি টিয়ার গ্যাস ছোঁড়ে। ঘটনায় চোপড়া থানার আইসি পার্থসারথী মজুমদার লোহার রডের ঘায়ে জখম হন। জখম আরও বেশ কয়েকজন পুলিশ কর্মী।

বিরোধীদের পক্ষে বিজেপি নেতা শাহীন আখতার এবং ব্লক কংগ্রেস সভাপতি অশোক রায়ের অভিযোগ,এদিন গণনা কেন্দ্রে বিরোধীদের ঢুকতেই দেওয়া হয়নি। প্রার্থী এবং কাউন্টিং এজেন্টদের কার্ড এবং বৈধ কাগজপত্র সব ছিনিয়ে নেওয়া হয়। দাসপাড়া থেকে বাসে করে একসঙ্গে বিরোধী দলের প্রার্থী ও এজেন্টরা আসছিল। সেই সময় বাস ভাঙচুরের পাশাপাশি দুষ্কৃতীরা গুলি চালায় বলে অভিযোগ।

পুলিশ জখমদের উদ্ধার করতে গেলে পুলিশের উপর হামলা চালায় দুষ্কৃতীরা। মুহূর্তেই ভয়াবহ হয়ে ওঠে চোপড়ার পরিস্থিতি। নামানো হয় র‍্যাফ-সহ বিশাল পুলিশ বাহিনী। গণনা বন্ধের দাবি জানিয়েছেন বিরোধীরা।পুলিশ ঘটনার তদন্তে নেমেছে বলে জানিয়েছে।