ঢাকা:  ঢাকায় ফিরে গেলেন বাংলাদেশের জনপ্রিয় নায়ক ফেরদৌস আহমেদ। গতকাল মঙ্গলবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের বিজি ০৯৬ ফ্লাইটে ঢাকায় ফেরেন তিনি। হয়রত শাহজাহাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে একাধিক আধিকারিক এই বিষয়ে বাংলাদেশের একাধিক সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছেন। এর আগে কলকাতা নেতাজি সুভাষ চন্দ্র আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে বিতর্কিত নায়কের দেশে ফেরার খবর নিশ্চিত করে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের অফিস।

তৃণমূলের প্রচারে যোগ দেওয়ায় বাংলাদেশি অভিনেতা ফেরদৌস আহমেদের ভিসা বাতিল করেছে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক। একইসঙ্গে ফেরদৌসকে অবিলম্বে ভারত ছাড়ার নির্দেশ দিয়ে নোটিশও জারি করা হয়। এরপরেই দ্রুত বাংলাদেশের বিমান ধরেন বলে জানা গিয়েছে। অন্যদিকে, বাংলাদেশ দূতাবাসের তরফে বাংলাদেশের সংবাদমাধ্যমকে জানান, নির্ধারিত সফর শেষে মঙ্গলবারই ঢাকায় ফেরার কথা ছিল ফেরদৌসের। তিনি সেভাবেই রাতে বিমান বাংলাদেশের একটি ফ্লাইটে দেশে ফেরেন।

তাঁর রাজনৈতিক প্রচারে অংশ নেওয়ার বিষয়ে জানতে চাওয়া হলে ভারতে অবস্থিত বাংলাদেশ দূতাবাসের ওই আধিকারিক জানিয়েছেন, ‘আমরা বিব্রত। বিষয়টি আমাদের ধারণার বাইরে ছিল। ফেরদৌস দূতাবাসকে না জানিয়ে একটি দলের পক্ষে রাজনৈতিক প্রচারে অংশ নিয়েছেন।’ এই বিষয়ে যোগাযোগের চেষ্টা করলে ফেরদৌসের ফোন বন্ধ পাওয়া যায়, দাবি বাংলাদেশের সংবাদমাধ্যমের।

উল্লেখ্য, গত ১৪ ও ১৫ এপ্রিল রায়গঞ্জের তৃণমূল প্রার্থী কানহাইয়ালাল আগরওয়ালের সমর্থনে ভোট প্রচারে গিয়েছিলেন ফেরদৌস। বিজেপির দাবি তোলে, বাংলাদেশের অভিনেতা টুরিস্ট ভিসা নিয়ে এসে এ ভাবে ভোটে প্রচার করতে পারেন না। এতে যেমন নির্বাচনি বিধি ভঙ্গ হয়েছে, তেমনই ভিসার শর্তও লঙ্ঘন হয়েছে। এরপরেই বিষয়টি নিয়ে নড়েচড়ে বসে কমিশন এবং কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক।