স্টাফ রিপোর্টার, দার্জিলিং: জন আন্দোলন পার্টি সুপ্রিমো হরকা বাহাদুর ছেত্রী৷ প্রভাবশালী ওই নেতা কানে ফোন নিয়েই ভোট দিতে ঢোকেন বুথে৷ এই ছবি প্রকাশ্যে আসতেই নড়েচড়ে বসল নির্বাচন কমিশন৷ ওই বুথের প্রিসাইডিং অফিসারকে সরিয়ে দেয় কমিশন৷ পরে স্থানীয় প্রশাসনকে হরকা বাহাদুর ছেত্রীর বিরুদ্ধে এফআইআর এর নির্দেশ দেয় কমিশন৷

১৮ এপ্রিল চলছিল ১৭তম লোকসভা নির্বাচনের দ্বিতীয় দফার ভোট৷ দার্জিলিং লোকসভা কেন্দ্রের কালিম্পংয়ের গভর্নমেন্ট জুনিয়র বেসিক স্কুল৷ এদিন ওই স্কুলের ১১০ নম্বর বুথে ভোট দিতে আসেন জন আন্দোলন পার্টি সুপ্রিমো হরকা বাহাদুর ছেত্রী৷ অভিযোগ, সেই সময় তিনি কানে ফোন নিয়ে কথা বলতে বলতে বুথের ভিতর ঢোকেন৷ এবং ভোট দিয়ে বেরিয়ে আসেন৷ বিষয়টি নজরে আসে নির্বাচন কমিশনের৷ তড়িঘড়ি ব্যবস্থা নেয় কমিশন৷ প্রথমে ওই বুথের প্রিসাইডিং অফিসারকে সরিয়ে দেওয়া হয়৷ তারপর স্থানীয় প্রশাসনকে হরকা বাহাদুর ছেত্রীর বিরুদ্ধে এফআইআর এর নির্দেশ দেয় কমিশন৷

পড়ুন: উত্তরবঙ্গে প্রথম দুয়ে পাঁচে পাঁচ পাবে বিজেপি, দাবি মুকুলের

উল্লেখ্য, কমিশনের নিয়ম অনুযায়ী বুথের মধ্যে ফোনের ব্যবহার নিষিদ্ধ।যদিও এই বিষয় হরকা বাহাদুর ছেত্রীকে প্রশ্ন করা হলে তিনি জানান, নিয়ম জানা ছিল না৷ সেই সময় কেউ আপত্তি করেনি৷ আপত্তি করলে ফোন রেখে দিতাম৷ পাহাড়ের এই দাপুটে নেতা বিভিন্ন ইসুতে আন্দোলনে নেমে বার বার খবরের শিরোনামে এসেছেন৷ এবার কানে ফোন নিয়ে ভোট গ্রহন কেন্দ্রে ঢোকে ভোট দিয়ে ফের খবরের শিরোনামে৷

ভোটের আগে পাহাড়বাসীকে প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন, ক্ষমতায় এলে পাহাড়ের ১১ জনজাতীকে তফশিলী উপজাতির মর্যাদা দেওয়া হবে ও পাহাড়বাসীর দীর্ঘদিনের দাবিগুলি বিবেচনা করে দেখা হবে৷