লখনউ:  অনলাইন শপিং সাইটের প্রমোশন করে বেজায় বিপাকে রণবীর কাপুর ও ফারহান আখতার৷ যে সাইটের প্রমোশন করেছিলেন তাঁরা, সেটি ক্রেতাকে ঠকিয়েছে, এই অভিযোগে তাঁদের বিরুদ্ধে এফআইআরও দায়ের করেছেন রজত বনসল নামে এক আইনজীবি৷

এক বিশেষ শপিং সাইটের হয়ে প্রমোশন করেছিলেন রণবীর ও ফারহান৷ তারকারা হামেশাই এরকম প্রমোশন করে থাকেন৷ কিন্তু সে জল যে এইআইআর অবধি গড়াবে তাঁরা বোধহয় ভাবতেও পারেননি৷ বনশল নিজে ওই সাইট থেকে একটি ৪০ ইঞ্চি এলইডি টিভি কিনবেন বলে মনস্থির করেছিলেন৷ সেইমতো তিনি অর্ডার দেন এবং ক্রেডিট কার্ডের মাধ্যমে টাকা পয়সাও দিয়ে দেন৷ কিন্তু কথামতো ১০ দিন পেরিয়ে গেলেও তাঁর টিভি আর আসেনি৷ প্রতিশ্রুতি ভঙ্গের অভিযোগ এনে তাই তিনি শপিং সাইটের কর্তাদের নামে অভিযোগ দায়ের করেছেন৷ পাশাপাশি তাঁর অভিযোগের কবলে পড়েছেন ফারহান রণবীরও৷ তাঁর মতে, রণবীর- ফারহান এভাবে প্রচার করেছিলেন সাইটটির যে, সেটির গ্রহণযোগ্যতা অনেকগুণ বেড়ে গিয়েছিল তাঁর মতো ক্রেতার কাছে৷ কিন্তু বাস্তবে সাইটটি ক্রেতাকে ঠকিয়েছে, প্রতারণা করেছে৷ এর দায়ভার সংশ্লিষ্ট অভিনেতার ওপরও বর্তায় বলে তাঁর অভিমত৷

বিজ্ঞাপনের দায় কার, সংস্থার নাকি যে অভিনেতা-অভিনেত্রী তা প্রমোট করছেন তাঁর, এ বিতর্ক বহুদিনের৷ ম্যাগি নিষিদ্ধ হওয়ার সময় অভিযোগের আঙুল উঠেছিল অমিতাভ, মাধুরী, প্রীতির বিরুদ্ধে৷ বিনা প্রেসক্রিপশনে ওষুধ বিক্রি করার জন্য আর এক শপিং সাইটের বিরুদ্ধে অভিযোগ ওঠায়, অভিযোগ উঠেছিল সেটির প্রমোশনে থাকা অভিনেতা আমির খানের বিরুদ্ধেও৷

ভারতীয় আইনবিধির ৪০৬ ধারা অনুযায়ী বিশ্বাসভঙ্গের অভিযোগই মূলত উঠছে তাঁদের বিরুদ্ধে৷তবে আদৌ এ দায় অভিনেতা-অভিনেত্রীদের উপর পড়ে কি না, সে মীমাংশা আগেও হয়নি৷ ফারহান, রণবীরের ক্ষেত্রে একই গোত্রের অভিযোগের ভিত্তিতে কী পরিণতি হয়, তাইই দেখার৷