স্টাফ রিপোর্টার, বারাকপুর: ভাটপাড়া পুরসভার চেয়ারম্যান থাকাকালীন পুরসভার নামে বেনামি অ্যাকাউন্ট খুলে প্রায় ১০ কোটি আত্মসাৎ করেছেন অর্জুন সিং। এই অভিযোগ তুললেন অর্জুনের বিরুদ্ধে এফআইআর দায়ের করলেন পুরসভার বর্তমান প্রশাসক অরুণকুমার বন্দ্যোপাধ্যায়।

২০১০ থেকে ২০১৯ সাল পর্যন্ত ভাটপাড়া পুরসভার চেয়ারম্যান ছিলেন অর্জুন সিং। ভাটপাড়ার চেয়ারম্যান হওয়ার পরে অর্জুন একটি বেসরকারি ব্যাঙ্কের বারাকপুর শাখায় ‘চেয়ারম্যান’স রিলিফ ফান্ড’ নামে একটি একাউন্ট খোলেন বলে অভিযোগ। পরে ওই ব্যাঙ্কেরই ভাটপাড়া শাখায় একাউন্টটি সরিয়ে আনা হয় বলে জানানো হয়েছে। কিন্তু এব্যাপারে কিছুই জানত না বলে দাবি অরুণকুমার বন্দ্যোপাধ্যায়ের। অভিযোগ, বছরের পর বছর ধরে অর্জুন সিং ব্যক্তিগত ভাবে ওই একাউন্টটিতে লেনদেন চালিয়ে গিয়েছেন এবং ওই একাউন্ট থেকে।

ভাটপাড়ার পুর প্রশাসক ২৪ অগস্ট চিঠিটি লিখেছেন স্থানীয় ওসি-কে। তার ভিত্তিতে পরের দিন অর্থাৎ ২৫ অগস্ট পুলিশ এফআইআর রুজু করেছে। অর্জুন সিং ও তাঁর ভাইপো সৌরভ সিং-য়ের বিরুদ্ধে ৯ কোটি ২১ লক্ষ ৫৮ হাজার ২৭ টাকা ৭২ পয়সা তছরুপ করার অভিযোগ উঠেছে বলে সেখানে লেখা হয়েছে।

গত এক মাসের মধ্যে এই নিয়ে দ্বিতীয় বড় আর্থিক দুর্নীতির অভিযোগ দায়ের হল বারাকপুরের বিজেপি সাংসদের বিরুদ্ধে। এর আগে একটি সমবায় ব্যাঙ্কের টাকা নয়ছয় করার অভিযোগে তাঁর বিরুদ্ধে তদন্ত শুরু হয়। তাঁর বাড়িতে তল্লাশিও চালানো হয়।

শুধু তাই নয়, গত শনিবার অর্জুন সিংয়ের শ্যামনগরের রাউতাড়ায় পেট্রোল পাম্পে হানা দেয় ইবি ও গোয়েন্দা দফতর। পাম্পের পেট্রোলে কোনও ভেজাল আছে কিনা বা পাম্পের কাগজপত্র সঠিক কিনা, তা খতিয়ে দেখেন এনফোর্সমেন্ট ব্রাঞ্চ ও বারাকপুর পুলিশ কমিশনারেটের গোয়েন্দারা। সংগ্রহ করেন পেট্রোলের নমুনাও। বিজেপি এই সব কিছুর পিছনে তৃণমূলের চক্রান্ত দেখছে।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনাকালে বিনোদন দুনিয়ায় কী পরিবর্তন? জানাচ্ছেন, চলচ্চিত্র সমালোচক রত্নোত্তমা সেনগুপ্ত I