লন্ডন: ভারতের বিরুদ্ধে ম্যাচ খোয়াতে হলেও টুর্নামেন্ট থেকে ফোকাস এতটুকু সরেনি তাদের। গত ম্যাচে পাকিস্তানকে হারিয়েই তা জানান দিয়েছিল বিশ্বচ্যাম্পিয়নরা। শনিবার অ্যারন ফিঞ্চের অধিনায়কোচিত দেড়শত রানে শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে রানের পাহাড়ে চড়ে বসল ৫ বারের বিশ্বচ্যাম্পিয়নরা। ১৩২ বলে ১৫৩ রানের অনবদ্য ইনিংস খেললেন অস্ট্রেলিয়া দলনায়ক।

গত দু’টি ম্যাচ বৃষ্টির কারণে ভেস্তে যাওয়ায় মাঠে নামার সুযোগ হয়নি। অবশেষে শনিবার লন্ডনে বৃষ্টির ভ্রুকুটি উপেক্ষা করেই মাঠে নামার সুযোগ পেলেন লঙ্কান ক্রিকেটাররা। টস জিতে অস্ট্রেলিয়াকে ব্যাটিংয়ে পাঠিয়ে আবহাওয়ার ফায়দা তুলতে চেয়েছিলেন লঙ্কান অধিনায়ক দিমুথ করুনারত্নে। কিন্তু বাস্তবে তা ব্যুমেরাং হয়ে ফেরে। ডেভিড ওয়ার্নারের সঙ্গে ওপেনিং জুটিতে ৮০ রান যোগ করেন অধিনায়ক ফিঞ্চ। গত ম্যাচের শতরানকারী ২৬ রানে ফিরে যাওয়ার পর দ্রুত ফেরেন খোয়াজাও (১০)। এরপর তৃতীয় উইকেটে প্রাক্তন অধিনায়কের সঙ্গে ১৭৩ রানের পার্টনারশিপ গড়ে দলকে রানের পাহাড়ে ওঠার দিশা দেখান অ্যারন ফিঞ্চ।

আরও পড়ুন: ভারত-পাক মহারণে কোহলি-আমের ফেস-অফ

স্টিভ স্মিথের সঙ্গে জুটি বেঁধে শ্রীলঙ্কান বোলারদের বেদম প্রহার করে প্রথমে শতরান ও পরে দেড়শতরান পূর্ণ করেন ফিঞ্চ। ওয়ান ডে কেরিয়ারে এটি তাঁর ১৪ তম শতরান। ৪২.৪ ওভারে ফিঞ্চ যখন আউট হন, দলের রান তখন ২৭৩। অজি দলনায়কের ১৫৩ রানের ইনিংস এদিন সাজানো ছিল ১৫টি চার ও ৫টি ছয়ে। অধিনায়কের পাশাপাশি ৫৯ বলে ৭৩ রানের মূল্যবান ইনিংস আসে স্মিথের ব্যাট থেকে। ২৫ বলে অপরাজিত ৪৬ রানের দুরন্ত ক্যামিও খেলেন ম্যাক্সওয়েল।

আরও পড়ুন: ম্যাঞ্চেস্টার ভারতীয় দলের সঙ্গে অনুশীলনে পন্ত

শন মার্শ, অ্যালেক্স ক্যারির সহায়তা পেলে দলের রান সাড়ে তিনশোয় নিয়ে যেতে পারতেন তিনি। কিন্তু তা সম্ভব হয়নি। শেষদিকে জোড়া রান আউটের শিকার হন ক্যারি ও কামিন্স। শেষমেষ নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৭ উইকেট হারিয়ে ৩৩৪ রানে শেষ করে অস্ট্রেলিয়া। ২টি করে উইকেট নেন ইসুরু উদানা ও ধনঞ্জয় ডি সিলভা। ১০ ওভারে ৮৮ রান খরচ করেন নুয়ান প্রদীপ। এখন দেখার স্টার্ক, কামিন্স সমৃদ্ধ অস্ট্রেলিয়ার বোলিং লাইন-আপকে কতটা চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে দিতে পারে শ্রীলঙ্কার ব্যাটসম্যানরা।

পপ্রশ্ন অনেক: নবম পর্ব

Tree-bute: আমফানের তাণ্ডবের পর কলকাতা শহরে শতাধিক গাছ বাঁচাল যারা