নয়াদিল্লি: নির্মলা সীতারমনের প্রথম বাজেট নজর দিয়েছে বৈদ্যুতিক গাড়ির দিকে ৷ তিনি তাঁর বাজেট ভাষণে ১০,০০০ কোটি টাকা রেখেছেন ফাস্টার অ্যাডোপশন অফ ম্যানু্ফ্যাকটারি ইলেক্ট্রিক ভেহিকেল (FAME II) প্রকল্পে ৷ তিনি জানান, বৈদ্যুতিক গাড়ি কিনতে ঋণ নিলে দেড় লক্ষ টাকা পর্যন্ত সুদ আয়কর ছাড় দেওয়া হবে।

অর্থমন্ত্রী দাবি করেন, আড়াই লক্ষের বেশি করদাতা যারা গাড়ি কিনতে ঋণ নেয় তারা সুবিধা পাবেন ৷ তাছাড়া সরকার বৈদ্যুতিক গাড়ির ক্ষেত্রে জিএসটি ১২ শতাংশ থেকে কমিয়ে ৫ শতাংশ করা হয়েছে বাজেটে ৷

সীতারামন এদিন ভাষণে জানিয়েছেন , এখানে এই গাড়ির ভাল ক্রেতা রয়েছে ফলে ভারতকে বৈদ্যুতিক গাড়ির হাব গড়ার লক্ষ্য রয়েছে ৷ এর মধ্যে সৌরশক্তি চালিত ব্যাটারি রয়েছে এবং চার্জ দেওয়ার জন্য পরিকাঠামো গড়া হচ্ছে যা এই উদ্যোগকে উজ্জীবিত করবে৷

এই প্রকল্পটি মন্ত্রিসভায় অনুমোদনের পর এই ১০০০০ কোটি টাকা ২০১৯ সালের এপ্রিল থেকে তিন বছরে ধরে ব্যয় করা হবে৷ এই প্রকল্পের উদ্দেশ্য হল যাতে জনগণ দ্রুত বৈদ্যুতিক গাড়ি গ্রহণ করে এবং সেজন্যই তাদের উৎসাহিত করা হবে এবং প্রয়োজনীয় পরিকাঠামো গড়ে তোলা হবে এই সব গাড়ি চার্জিংএর ব্যবস্থা করার জন্য৷

এর ফলে ব্যাটারি এবং নথিভুক্ত ই-ভেহিকেল এই প্রকল্পে মাধ্যমে ইনসেনটিভ পাবে এবং পরিবেশ বান্ধব জন পরিবহণ ব্যবস্থা কথাও ভাবা হয়েছে সাধারণ জনগণের জন্য৷

তাছাড়া বৈদ্যুতিক গাড়ির বিভিন্ন যন্ত্রাংশের জন্য অন্ত শুল্ক ছাড় দেওয়া হচ্ছে এবং সেই সব পণ্য উৎপাদন করতে যেসব মেশিন পত্র লাগে সেগুলিতেও কর ছাড় মিলবে ৷

প্রশ্ন অনেক: দশম পর্ব

রবীন্দ্রনাথ শুধু বিশ্বকবিই শুধু নন, ছিলেন সমাজ সংস্কারকও