File pic

মুম্বই- আবার বলিউডে দুঃসংবাদ। গত দুদিন ধরে একের পর এক মৃত্যু সংবাদে ঘুম ভেঙেছে দেশের মানুষের। প্রথমে ইরফান খান, পরে কিংবদন্তী অভিনেতা ঋষি কাপুর। কিছুতেই মেনে নিতে পারছে না দেশবাসী। শোকের মধ্যে আরও একটা খারাপ খবর। চলে গেলেন ফিল্ম অ্যান্ড টেলিভিশন প্রযোজক গিল্ডের সিইও কুলমিত মাক্কার।

অভিনেতা ইরফান খান ও ঋষি কাপুরের মৃত্যুতে শোক বিহ্বল বলিউড। আর এবার কুলমিতের প্রয়াণে আরও একবার ধাক্কা খেল বলিউড। জানা যাচ্ছে, লকডাউনের জেরে হিমাচল প্রদেশের ধর্মশালায় আটকে ছিলেন ফিল্ম অ্যান্ড টেলিভিশন প্রযোজক গিল্ডের সিইও। সেখানেই তাঁর মৃত্যু হয়। হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে তাঁর মৃত্যু হয়েছে বলে জানিয়েছেন ফিল্ম অ্যান্ড টেলিভিশন প্রযোজক গিল্ডের সভাপতি অশোক পণ্ডিত। তিনিই কুলমিতের মৃত্যুর খবর প্রকাশ্যে আনেন।

ফিল্ম অ্যান্ড টেলিভিশন প্রযোজক গিল্ডের সিইও-র মৃত্যুতে বলিউডে শুক্রবারও শোকের ছায়া অব্যাহত রইল। তাঁর মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করেছেন করণ জোহর, সঞ্জয় সুরি, ফারহান আখতার,-সহ অন্যান্য অভিনেতা প্রযোজক ও পরিচালকরা। তিনি বহুদিন ধরে মুম্বইয়ের বিনোদন জগতের সঙ্গে যুক্ত ছিলেন। সারেগামা, রিলায়েন্স এন্টারটেইনমেন্টের সিইও ছিলেন তিনি। ২০১০ সালে গিল্ডের সিইও পদ পান কুলমিত।

হিন্দি টেলিভিশনের জন্য তিনি অনেক কাজ করেছেন। তাঁর সঙ্গে কাজ করেছেন বলিউডের বহু পরিচালক প্রযোজক। প্রসঙ্গত, মঙ্গলবার আচমকা শারীরিক অবস্থার অবনতি হওয়ায় ইরফান খানকে মুম্বইয়ের কোকিলাবেন হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। জানা যায় কোলন ইনফেকশনের জন্য তিনি অসুস্থ।

বুধবার সকালেই শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন তিনি। পরের দিন, অর্থাৎ বৃহস্পতিবার প্রয়াত হন ঋষি কাপুর। অসুস্থ হয়ে বুধবারই এইচ এন এন রিলায়েন্স হাসপাতালে ভর্তি করা হয় অভিনেতাকে। ঋষির দাদা রণধীর কপূর সংবাদসংস্থা পিটিআইকে বলেছেন, ওর শরীর ভালো যাচ্ছিল না। কিছু সমস্যা দেখা দিয়েছিল। ক্যানসার তো রয়েছেই। শ্বাসকষ্টও শুরু হয়। সে জন্যই বুধবার সকালে ওকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।