কলকাতা: কলকাতা মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালের একাধিক চিকিৎসক ও আধিকারিক নোভেল করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। এই ঘটনায় স্বভাবতই আতঙ্ক ছড়িয়েছে চিকিৎসক-সহ অন্য স্বাস্থ্যকর্মীদের মধ্যে। জানা গিয়েছে, মেডিক্যাল কলেজের বেশ কয়েকজন চিকিৎসক ও আধিকারিক করোনা আক্রান্ত হয়ে ওই হাসপাতালেই ভর্তি রয়েছেন।

কোভিড-যুদ্ধে একেবারে প্রথম সারিতে থেকে লড়াই চালাচ্ছেন চিকিৎসক, নার্স-সহ অন্য স্বাস্থ্যকর্মীরা। জীবনের ঝুঁকি নিয়ে করোনার মোকাবিলা করতে গিয়ে প্রায়শই তাঁরাও সংক্রমিত হচ্ছন। ঘটছে মৃত্যুও।

এবার কলকাতা মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালের বেশ কয়েকজন চিকিৎসক, আধিকারিক করোনায় আক্রান্ত হওয়ায় বেড়েছে উদ্বেগ। জানা গিয়েছে, হাসপাতালের আক্রান্তদের মধ্যে রয়েছেন প্রসূতি বিভাগের অধ্যাপক, অ্যাসিস্ট্যান্ট সুপার-সহ বেশ কয়েকজন।

পুজোর মরশুম শুরুর সঙ্গে-সঙ্গেই গোটা রাজ্যে করোনার সংক্রমণও বাড়ছে। দৈনিক সংক্রমিতের সংখ্যা ৪ হাজারের কাছাকাছি পৌঁছেছে। পাল্লা দিয়ে বাড়ছে মৃত্যুও। শহর কলকাতার পরিস্থিতি সবচেয়ে বেশি উদ্বেগের। কলকাতায় মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ৭০ হাজার ছাড়িয়ে গিয়েছে। করোনায় কলকাতায় মৃতের সংখ্যা ছাড়িয়েছে ২ হাজার।

রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্তে ছড়াচ্ছে সংক্রমণ। পুজো শুরুর সঙ্গে সঙ্গে করোনার সংক্রমণ বেড়ে চলায় রীতিমতো উদ্বগজনক পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে। ঘোর উদ্বিগ্ন রাজ্য সরকারও। সোমবারই এব্যাপারে তৎপরতা নিতে বৈঠক বসেছিল রাজ্য প্রশাসন।

মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জেলা প্রশাসনের কর্তাদের সতর্ক থাকতে বলেছেন। উৎসবের মরশুমের শেষে রাজ্যে করোনার সংক্রমণ আরও বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।

হাসপাতালগুলিতে যাতে পর্যাপ্ত বেডের ব্যবস্থা থাকে ও রাজ্যের সর্বত্র যাতে অ্যাম্বুল্যান্সের ব্যবস্থা রাখা যায় সেব্যাপারে প্রশাসনিক কর্তাদের সজাগ দৃষ্টি রাখতে নির্দেশ দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

স্বামীর সঙ্গে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে বস্ত্র ব্যবসাকে অন্যমাত্রা দিয়েছেন।'প্রশ্ন অনেকে'-এ মুখোমুখি দশভূজা স্বর্ণালী কাঞ্জিলাল I