পানাজি: কাতারের আল রায়ান এফসি’কে রুখে দেওয়ার ৭২ ঘন্টার মধ্যে চ্যাম্পিয়ন্স লিগে আরও একবার মুগ্ধ করল এফসি গোয়া। এএফসি চ্যাম্পিয়ন্স লিগের গ্রুপ পর্বের দ্বিতীয় ম্যাচেও অক্ষত রইল গৌরদের দুর্গ। শনিবার সংযুক্ত আরব আমিরশাহীর আল ওয়াহদা এফসি’কে রুখে দিয়ে ফের এক পয়েন্ট ঝুলিতে ভরে নিল জুয়ান ফেরান্দোর ছেলেরা। ফতোরদার নেহরু স্টেডিয়ামে এফসি গোয়া বনাম আল ওয়াহদা এফসি ম্যাচ শেষ হল গোলশূন্যভাবে।

বুধবারের ম্যাচের নিরিখে এএফসি চ্যাম্পিয়ন্স লিগের প্রথম রাউন্ডের পর সেরা একাদশে জায়গা করে নিয়েছিলেন গোয়ার দুর্গের শেষ প্রহরী ধীরজ সিং। আর শনিবার কেবল দুর্দান্ত রক্ষণ সামলানোই নয়, পাশাপাশি আক্রমণেও বৈচিত্র্য আনল গৌররা। একাধিক গোলের সুযোগ তৈরি করলেন ব্র্যান্ডন ফার্নান্দেজ, জর্জ ওর্তিজরা। ব্র্যান্ডনের প্রয়াস পোস্টে লেগে ফিরে না এলে চ্যাম্পিয়ন্স লিগে তাদের প্রথম গোল এদিন পেয়ে যেত এফসি গোয়া। সবমিলিয়ে বলা যায় চ্যাম্পিয়ন্স লিগের দ্বিতীয় ম্যাচে গোয়া আরও প্রশংসনীয় ফুটবল খেলল।

তবে মরুশহরের ক্লাবের বিরুদ্ধে তেকাঠির নীচে এদিনও অনবদ্য ছিলেন ধীরজ সিং। দু’টি ক্ষেত্রে ওমর খ্রিবিন এবং একটি ক্ষেত্রে ইসমায়েল মাতারের গোলমুখী প্রয়াস লক্ষ্যভ্রষ্ট করে ফের নায়ক এটিকে মোহনবাগান থেকে রেকর্ড ট্রান্সফারে গোয়ায় যোগ দেওয়া এই গোলরক্ষক। প্রথমার্ধে মাঝমাঠে নিয়ন্ত্রিত ফুটবল খেললেন এডু বেদিয়া, গ্লেন মার্টিন্সরা। পাশাপাশি আমিরশাহীর দলটির আক্রমণ সেই অর্থে দানা বাঁধতে দিলেন না ইভান গঞ্জালেস, জেমস দোনাচিরা। সবমিলিয়ে প্রথম ৪৫ মিনিট আধিপত্য নিয়ে খেলেও গোলমুখ খুলতে ব্যর্থ আমিরশাহীর ক্লাবটি।

দ্বিতীয়ার্ধে প্রথম দশ মিনিটের মধ্যেই ইশান পান্ডিতাকে তুলে দেবেন্দ্র মুরগাওঁকরকে মাঠে নামান ফেরান্দো। গোয়ার আক্রমণে বৈচিত্র্য আসে। মূলত মুরগাওঁকর কেন্দ্রিক আক্রমণেই ওয়াহদা রক্ষনে চাপ বাড়ায় গৌররা। পরিবর্ত এই ফুটবলারের ব্যাকপাস থেকে জর্জ ওর্তিজ নির্বিষ ক্রস রাখলে তা আংশিক প্রতিহত হয় বিপক্ষ রক্ষণে। ফিরতি বলে ব্র্যান্ডনের মাটি ঘেঁষা শট পোস্টে লেগে ফিরে আসে। ৭৩ মিনিটে মুরগাওঁকরের একটি ক্লোজ-রেঞ্জ প্রয়াস দুরন্ত রিফ্লেক্সে প্রতিহত করেন ওয়াহদা গোলরক্ষক আলশামসি।

ম্যাচের নির্ধারিত সময়ের শেষ মিনিটে এবং সংযুক্তি সময়ে ওমর খ্রিবিনের জোড়া প্রচেষ্টা রুখে দিয়ে নায়ক বনে যান সেই ধীরজ। পরবর্তী রাউন্ডেও তাই চ্যাম্পিয়ন্স লিগের সেরা একাদশে ধীরজকে দেখলে অবাক হওয়ার কিছু থাকবে না। দু’ম্যাচে ২ পয়েন্ট নিয়ে গ্রুপ -‘ই’তে আপাতত দ্বিতীয়স্থানে এফসি গোয়া।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.