পানাজি: অমিমাংসিতভাবে শেষ হল এফসি গোয়া বনাম মুম্বই সিটি এফসি আইএসএলের প্রথম সেমিফাইনালের প্রথম লেগ। ফলাফল দেখে মনে হতেই পারে দু’বার এগিয়ে গিয়েও জয় পেতে ব্যর্থ এফসি গোয়া। কিন্তু সুযোগ অপচয়ের ক্ষেত্রে এদিন গোয়াকে টেক্কা দিল লিগ শিল্ড উইনার মুম্বই সিটি এফসি। গোয়ার হয়ে গোলদু’টি ইগর আঙ্গুলো এবং সেভিয়ার গামার। আর মুম্বইয়ের হয়ে দু’টি গোল হুগো বোউমাস এবং মোর্তাদা ফলের।

ইভান গঞ্জালেস এবং আলবার্তো নগুয়েরা চোটের কারণে না থাকায় গুরুত্বপূর্ণ সেমিফাইনালে চার বিদেশিকে নিয়ে এদিন দল সাজান গোয়া কোচ জুয়ান ফেরান্দো। উত্তেজক ম্যাচে এদিন ২০ মিনিটে প্রথম গোলের দেখা পায় গোয়া। বক্সের মধ্যে জর্জ ওর্তিজকে মন্দার রাও দেশাই ফাউল করলে পেনাল্টি পায় গোয়া। স্পটকিক থেকে নিশানায় অব্যর্থ স্প্যানিশ স্ট্রাইকার ইগর আঙ্গুলো ম্যাচে এগিয়ে দেন গোয়াকে। ১৪ গোল করে গোল্ডেন বুটের লক্ষ্যে রয় কৃষ্ণাকে ছুঁয়ে ফেললেন তিনি। তবে চোট-আঘাতে জর্জরিত গোয়া শিবিরে ফের ধাক্কা নেমে আসে ৩৫ মিনিটে।

চোট পেয়ে মাঠ ছাড়েন ডিফেন্ডার সেরিটন ফার্নান্দেজ। পরিবর্তে মাঠে নামেন অভিষেককারী লিয়েন্ডার ডি’কুনহা। এর ঠিক দু’মিনিটের মধ্যে ম্যাচে সমতায় ফেরে মুম্বই সিটি এফসি। আহমেদ জাহৌর দ্রুত ফ্রি-কিকের ফায়দা তুলে বক্সের মধ্যে নেওয়া বোউমাসের ডানপায়ের জোরালো ভলি জড়িয়ে যায় জালে। যদিও এর আগে সহজ সুযোগ নষ্ট করেন ওগবেচে। গোয়া গোলরক্ষক ধীরজের দস্তানায় প্রতিহত হয় ওগবেচের আরও একটি প্রয়াস।

দ্বিতীয়ার্ধে খেলার গতির কিছুটা বিরুদ্ধে গিয়েই দ্বিতীয় গোল তুলে নেয় এফসি গোয়া। ম্যাচে প্রথমবারের জন্য লিড নেওয়ার লক্ষ্যে গোয়া রক্ষণে হানা দিতে থাকা মুম্বই ৫৯ মিনিটে গোল হজম করে বসে। এক্ষেত্রে বল ধরে একক দক্ষতায় বক্সের অনেকটা বাইরে থেকে মাটি ঘেঁষা শটে অমরিন্দরকে পরাস্ত করেন সেভিয়ার গামা। তবে গোয়ার এই গোল বেশিক্ষণ স্থায়ী হয়নি। তিন মিনিটে বাদে জাহৌর ডানপ্রান্তিক ক্রস ড্রপ হেডারে জালে জড়িয়ে দেন মোর্তাদা ফল।

বাকি সময়টা লড়াই জারি থাকলেও প্রথম লেগের ম্যাচে কোনও মীমাংসা বেরিয়ে আসেনি। শেষদিকে চোট পেয়ে প্রিন্সটন রেবেলো মাঠ ছাড়ায় সোমবার দ্বিতীয় লেগের আগে চিন্তার ভাঁজ ফেরান্দোর কপালে। রেবেলোকে জঘন্য ফাউল করেও ফল লাল কার্ড না দেখায় ম্যাচ শেষে রেফারিদের সঙ্গে তর্ক জুড়ে দেন তিনি। ফেরান্দো জানান, ‘আমার হাতে মাত্র ১০ জন প্লেয়ার রয়েছে। জানি না কীভাবে দল গড়ব।’

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.