লখনউ: মুসলিম মহিলাদের উপর ফতোয়া জারি করল দারুল উলুম দেওবন্দ৷ পরপুরুষের হাত থেকে চুড়ি পরা যাবেনা৷ সে মেলা হোক বা বাজারের চুড়ির দোকান কোথাও কোনও জায়গায় গিয়েই কোন পুরুষ দোকানীর হাত থেকে চুড়ি গলানো যাবেনা হাতে৷ এটা করা মুসলিম মহিলাদের জন্য খারাপ৷ এই মর্মেই ফতোয়া জারি করেছে দেওবন্দ৷

জানা গেছে দেওবন্দের কাছে লিখিতভাবে একজন প্রশ্ন রেখেছিলেন “আমাদের এখানে চুড়ি বিক্রি ও চুড়ি পরানোর কাজ করেন পুরুষরাই৷ মুসলিম মহিলাদের চুড়ি পরতে বাইরে বেরোতে হয় এবং নিজের হাতে চুড়ি পরতে হলে নিজের হাত পরপুরুষের হাতে দিতে হয়৷ এরকম ঘরের বাইরে বেরিয়ে বা ঘরেই অন্য পুরুষের হাত থেকে চুড়ি পরাটা ন্যায় সঙ্গত?”

আরও পড়ুন : সাঞ্জুয়ানা হামলা: জঙ্গি নিধন অভিযান খতিয়ে দেখতে গেলেন সেনাপ্রধান

এই প্রশ্নের উত্তরেই দারুল উলুম দেওবন্দের মুফতিরা বলেন “পরপুরুষের অচেনা মহিলাদের হাতে চুড়ি পরানো অপরাধ ও অবৈধ৷ যার সঙ্গে রক্তের সম্পর্ক নেই এরকম পুরুষের হাত থেকে চুড়ি পরা, বা এরকম পুরুষের হাত থেকে চুড়ি পরার জন্য ঘরের বাইরে বেরোনও অপরাধ৷” ফতোয়াতে এভাবেই সে প্রশ্নের উত্তর দেওয়া হয়৷

ইসলামি শরিয়ত অনুযায়ী, কোনও মুসলিম মহিলাকে প্রতিটি অচেনা বা পরপুরুষের সামনে ‘পর্দানশিন’ থাকতে হয়৷ যে পুরুষের সঙ্গে সেই মহিলার রক্তের সম্পর্ক নেই তার সামনে মুখ দেখানোরও নিয়ম নেই৷ সেই নিয়ম মোতাবেকই এই ফতোয়া জারি করা হয়েছে৷

এই ফতোয়ায় যে কথা বলা হয়েছে তা হল “চুড়ি পরা অন্যায় বা দোষের নয়৷ কিন্তু সেই চুড়ি কোনও পর পুরুষের হাত থেকে যেন পরা না হয়৷ মুসলিম মহিলারা বাজার থেকে চুড়ি বাড়িতে আনিয়ে নিন ও নিজে পরুন৷”