ফাইল ফটো

বিজয় রায়, কলকাতা: রাষ্ট্রীয় স্বয়ংসেবক সংঘকে বৃহন্নলার সঙ্গে তুলনা করে নয়া বিতর্কে টিপু সুলতান মসজিদের ইমাম সৈয়দ নূরুর বরকতি৷ শুধু বিতর্কে জড়ালেনই না৷ উস্কানিমূলক মন্তব্যও করলেন তিনি৷মঙ্গলবার কলকাতা প্রেস ক্লাবে সাংবাদিক সম্মেলনে বরকতি বলেন, ‘‘হিজড়াদের মতো না এসে আরএসএস বাহাদুরের মতো আসলে মুসলমানরা তাদের বুঝে নেবে৷’’ বরকতির এই মন্তব্যের পরেই তীব্র সমালোচনায় সরব হয় সংঘ পরিবার৷ একইসঙ্গে দায়িত্বজ্ঞানহীনের মতো মন্তব্য বরকতির মুখে মানায় না বলেও সরব রাজ্য ট্রান্সজেন্ডার বোর্ড৷

বরকতি বলেন, ‘‘মুসলমানদের উপর সংঘ পরিবারের সদস্যরা আক্রমণ করলে ছেড়ে কথা বলা হবে না৷’’ একজন ইমাম হয়ে বরকতির মুখে এই ধরনের হুমকি মানায় না বলে দাবি করেন আরএসএস এর রাজ্য প্রান্ত কার্যবাহক (সাধারণ সম্পাদক) জিষ্ণু বসু৷ তাঁর কথায়, বরকতির মতো লোকেরা আসলে ভুলে গিয়েছে এটা কাজী নজরুল ইসলামের মতো মহাপুরুষদের রাজ্য৷ তাঁর মতো দু’দিন উর্দু শেখা লোকের রাজ্য এটা নয়৷ একই সঙ্গে তিনি আরও দাবি করেন, কাজী নজরুল ইসলামের লেখা তিনি হয়তো পড়েননি৷ পড়লে এই ধরনের মন্তব্য করতে পারতেন না৷

বরকতির এই ধরনের মন্তব্যের জেরে তীব্র প্রতিক্রিয়া দিয়েছেন রাজ্য ট্রান্সজেন্ডার বোর্ডের সদস্য রঞ্জিতা সিনহা৷ তাঁর আক্ষেপ, এই ধরনের মন্তব্য যদি বরকতির মতো মানুষ করেন, তাহলে বৃহন্নলাদের সম্পর্কে সাধারণ মানুষের ধারণা কী হবে৷এরই পাশাপাশি তিনি আরও বলেন, ‘‘এই কথার মাধ্যমে দেশের সংবিধানকে অসম্মান করেছেন বরকতি৷’’

মঙ্গলবার তিন তালাকের বিরুদ্ধেও সুর সপ্তমে তোলেন ইমাম বরকতি৷ তিনি বলেন, শরিয়ত আইনে এর উল্লেখ রয়েছে৷ এটা মুসলমান সম্প্রদায়ের বিশ্বাসের বিষয়৷ বুঝিয়ে বললে আদালত তা মেনে নেবে৷ এই বিষয়ে বিজেপির নাক গলানো বরদাস্ত করা হবে না বলেও হুমকি দেন টিপু সুলতানের ইমাম৷

এদিকে ইমামের এই হুমকি প্রসঙ্গেও তীব্র প্রতিক্রিয়া দেন জিষ্ণু বসু৷ আরএসএস এর রাজ্য প্রান্ত কার্যবাহকের কথায়, সাংবাদিক সম্মেলন ডেকে যখন তিনি এই ধরনের কথা বলছেন, উল্টোদিকে দিল্লিতে গিয়ে ১০০ জন মুসলমান প্রতিনিধি মোদীর সঙ্গে বৈঠক করে তিন তালাকের বিরোধিতা করছেন৷ তাই বরকতির মতো লোকেদের কথায় কিছু যায় আসে না৷

প্রশ্ন অনেক: দশম পর্ব

রবীন্দ্রনাথ শুধু বিশ্বকবিই শুধু নন, ছিলেন সমাজ সংস্কারকও