নয়াদিল্লি: হাতে আর মাত্র ৪৮ ঘন্টা। ১৫ ডিসেম্বর অর্থাৎ রবিবারের মধ্যে সমস্ত গাড়িতে ফ্যাস্টাগ লাগানো বাধ্যতামূলক। না হলে গুণতে হবে মোটা অংকের ফাইন। গত ১ লা ডিসেম্বর সমস্ত গাড়ি গাড়িতে ফ্যাস্টাগ লাগানো ছিল বাধ্যতামূলক। কিন্তু দেখা যায় বহু গাড়িতে তখনও পর্যন্ত ফ্যাস্টাগ লাগানো সম্ভব হয়নি। ফলে দু’সপ্তাহ বাড়ানো হয় সেই সময়সীমা। আগামী ১৫ ডিসেম্বর শেষ হচ্ছে সেই সময়সীমা। ফলে এর মধ্যে গাড়িতে ফ্যাস্টাগ লাগিয়ে নেওয়াটা বাধ্যতামূলক। আর এর মধ্যে তা না করা হলে গাড়ি চালককে দিতে হবে মোটা অংকের জরিমানা।

অবশ্যই জরুরি এই তথ্যগুলি জেনে রাখুন-

এই ফাস্ট্যাগ ২২টি ব্যাঙ্ক থেকে কিনতে পাওয়া যাবে। এছাড়াও অনলাইন ই সাইট আমাজন থেকে ক্রেতারা এই স্টিকার কিনে নিতে পারবেন। দুইভাবে এই ফাস্ট্যাগকে চালু করা যাবে।

১। নিজে থেকে- যে কোন পিওএস থেকে বা অনলাইন থেকে কেনার পরে গাড়ির প্রয়োজনীয় সকল তথ্য দিয়ে my fastag app এ দিয়ে নিজে থেকেই চালু করে নিতে পারবেন মানুষজন। অ্যান্ড্রয়েড এবং আই ফোন ব্যবহারকারীরা এই অ্যাপ ব্যবহার করে নিজে থেকে চালু করে নিতে পারবেন।

২. যে কোন ব্যাংকে গিয়ে- এছাড়া ব্যাংক থেকে এই ফাস্ট্যাগ কিনে নিজের ব্যাংক অ্যাকাউন্টের সঙ্গে যুক্ত করে নিলে সেখান থেকে ব্যবহার করা যাবে। অ্যাক্টিভেট করার সময়ে ব্যবহারকারীদের ব্যাংকের কেওয়াইসি নিয়ম অনুসারে সকল কাগজপত্র জমা করতে হবে।

এই ফাস্ট্যাগের জন্য যে কোন ব্যাংক থেকে সব থেকে বেশী ১০০ টাকা ধার্য করা হয়েছে। যা ন্যাশানাল পেমেন্ট কর্পোরেশন অফ ইন্ডিয়া থেকে নির্ধারণ করা হয়েছে৷ তবে ব্যাংক বিশেষে এই চার্জ আলাদা হতে পারে। এইচডিএফসি গাড়ির জন্য ফাস্ট্যাগ ৪০০ টাকাতে বিক্রি করছে। তবে যে পদ্ধতিতে করছে তা হল-

১০০ ট্যাগের ইনস্যুরেন্সের জন্য
২০০ রিফান্দেবল সিকিউরিটি ডিপোজিট হিসেবে
১০০ ওয়ালেট তৈরি করার পরে প্রথম রিচার্জ হিসেবে

এছাড়াও আইসিআইসিআই ব্যাংক ফাস্ট্যাগ ক্রেতাদের ৪৯৯.১২ টাকাতে বিক্রি করছে। যে পদ্ধতিতে করছে তা হল- ৯৯.১২ ইনস্যুরেন্স হিসেবে, ২০০ রিফান্দেবল সিকিউরিটি ডিপোজিট হিসেবে, ২০০ ওয়ালেট তৈরি করার পরে প্রথম রিচার্জ হিসেবে