Portrait of young woman in red raincoat on bike in rain

বর্ষায় রেকর্ড গড়ছে তিলোত্তমা৷ ভারী বৃষ্টিতে ভাসছে গোটা শহর৷ কিন্ত তার মধ্যেও বেরতেই হচ্ছে আপনাকে৷ অফিস স্কুল কলেজ সবই চালাতে হচ্ছে নিয়ম মেনে৷ জমা জলে পা ডুবিয়ে কাঁধে ব্যাগ হাতে ছাতা নিয়ে হাঁটা সত্যিই সমস্যাজনক৷ মুষলধারে বৃষ্টি হলে আবার ছাতাতে মানতে চায় না বৃষ্টির ছাঁট৷ ভিজে জামাকাপড়ে দীর্ঘক্ষণ কর্মক্ষেত্রে থাকাও শরীরের পক্ষে বিপজ্জনক৷ তাহলে ছাতাকে এবার টাটা করুন৷ একমাত্র রেইনকোটই করতে পারে আপনার মুশকিল আসান৷ কিন্তু তাতে আপনার ফ্যাশন কম হবে বলে ভয় পাচ্ছেন? এবার ফ্যাশন ট্রেন্ডকে মাথায় রেখে তাই আপনার জন্য বাজারে এসেছে নয় রেইনকোট৷ দেখে নিন কী কী রেইন কোট আপনাকে ফ্যাশনেবল রাখবে৷


১. পঞ্চু রেইনকোটpanchu


সাইজে একটু বড়ো হয় এই রেইনকোট৷ ঢিলেঢালা এই রেইনকোটের সঙ্গে টাইট স্কিনি জিনস ও স্যান্ডেল এবং কেয়ারলেস বিউটি বেশ মানায়৷ তাছাড়া এই ধরণের রেইনকোটগুলি বৃষ্টির ঠান্ডা আবহাওয়ায় গরম রাখে আপনাকে৷


২. সফ্ট মেটালিক রেইনকোট

raincoat golden


মূলত উজ্জ্বল রঙের হয় এই রেইনকোটগুলি৷ সোনালী এবং রূপোলী রঙের এই রেইনকোটে বৃষ্টির দিনেও বেশ উজ্জ্বল লাগবে আপনাকে৷ তবে এই ধরণের রেইনকোটের সঙ্গে উপযুক্ত কম্বিনেশনের বটম ওয়্যার পরতে হবে৷ যেমন সোনালী রেইনকোটের সঙ্গে সবুজ বা মেরুন জিনস ভালো লাগে৷  আবার রূপোলী রেইনকোটের সঙ্গে ভালো লাগবে কালো রঙের প্যান্ট৷ এই রেইনকোটের সাজের সঙ্গে গয়না একেবারেই মানায় না সেদিকেও খেয়াল রাখতে হবে৷


৩. সি থ্রু রেইনকোটsee through rain coat


এই ধরণের রেইনকোট বাজারে বেশ হিট৷ এই রেইনকোট প্লাস্টিকের মতোই দেখতে৷ রেইনকোটটি পরলেও আপনার ভিতরের ফ্যাশনেবল ড্রেস দেখা যাবে স্পষ্ট৷ জিনসের শর্ট এবং টি-শার্টের সঙ্গে বেশ মানায় এই ধরণের রেইনকোট৷ গত কয়েক বছর ধরেই বাজার মাত করে রেখেছে এই ধরণের রেইনকোট৷

 

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.