চেহারা খানিকটা ভারী৷ বয়স বেশি নয়৷ তবুও বয়স্ক লাগে? যদি চেহারাকে দোষ দিয়ে থাকেন তাহলে ভুল করছেন৷ হতে পারে আপনার ড্রেসিং সেন্সের জন্যও আপনাকে বয়স্ক দেখাচ্ছে৷ চেহারার ক্ষেত্রে সঠিক জামাকাপড় না বাছতে পারলে আপনার অ্যাপিয়েরেন্সে আসতে পারে নেগেটিভ ফিডব্যাক৷ পোশাক এমন একটা জিনিস যা আপাদমস্তক বদলে দিতে পারে আপনার লুক৷ মেয়েদের ক্ষেত্রে একটা কথা প্রায় ব্যবহার করা হয়৷ ‘কুড়িতেই বুড়ি’৷ কথাটা গায়ে লাগলেও অনেক সময় এটাই সত্যি হয়ে দাড়ায়৷ বয়স কম, তবে সাজ পোশাকের জন্য আপনার বয়স কয়েক ধাপ বেড়ে গিয়েছে৷

যাতে আপনাকে বয়স্ক না লাগে তার জন্য অনুসরণ করে যেতে হবে এই ফ্যাশন টিপস৷ এগুলি ফোলো করলেই নিজের মধ্যে একটা বদল অনুভব করতে পারবেন৷

সঠিক মাপের পোশাক পরা সবচেয়ে বেশি প্রয়োজন৷ একটু ভারী চেহারার মহিলারা জামাকাপড় কিনতে গেলে সাধারণত ঢোলা পোশাকের দিকে চোখ দেন৷ অনেকে ভাবেন টাইট জামায় তাকে হয়তো বেশি মোটা লাগবে৷ কিনবা একটু বড়ো সাইজের জামা পরলে কম মোটা লাগবে৷ শরীরের অতিরিক্ত মেদের লেয়ার সকলের চোখে পড়বে৷ এই ভাবনা চিন্তা গুলি সাইডে রেখে বেছে নিন সঠিক পোশাক৷ যা আপনার সাইজ ঠিক সেটাই বেছে নিন৷ আর এতে আপনি কমফার্টেবলও থাকছেন৷

এটা খানিক কঠিন৷ এড়িয়ে চলুন লং স্কার্ট৷ এটা এমনই এক পোশাক যা মনে ধরে সকল মেয়েদের৷ বিভিন্ন প্রিন্ট, প্যাটার্ন, ডিজাইনে মুগ্ধ হয়ে সকলেই কিনে ফেলেন এই স্কার্ট৷ লং স্কার্টের একটা নেতিবাচক দিক হল আপনার শরীরের নীচের আংশ ভারী দেখায়৷ স্কার্ট যদি একান্তই পরতে হয় তাহলে মিডি স্কার্ট পরতে পারেন৷ তবে পেনসিল স্কার্ট না পরাই ভালো৷ অনেকেই মিডি স্কার্টের নাম শুনলে পেনসিল স্কার্ট কিনতে চান৷ কিন্তু এতে আপনার বারতি মেদ ধরা পড়ে৷

হরাইজেন্টাল স্ট্রাইপের পোশাক পরবেন না৷ এতে আপনার বয়স বেশি লাগে৷ বরং হরাইজেন্টাল স্ট্রাইপ ছেড়ে ভার্টিকাল স্ট্রাইপ কিনুন৷ এতে আপনাকে রোগা লাগবে, বয়স তো কমবেই৷

এখন ফ্যাশনে বেশ ভালই ইন গিক গ্লাসেস৷ চশমার আকৃতিই যে আপনার ব্যক্তিত্ব ও বয়স বদলে দিতে পারে তা নিশ্চই অজানা নয়৷ মুখের সঙ্গে মানানসই ফ্রেমের চশমা না পরলে বয়স বেশি দেখাবেই৷ এমনকি দেখতেও তেমন ভালো লাগবে না৷ সে ক্ষেত্রে পুরনো ডিজাইন ছেড়ে ট্রাই করুন গিক গ্লাসেস। এই চশমার ফ্রেম মুখের শেপ বদলে ফেলে৷ চওড়া করে তোলে চোখের চারপাশকে৷ স্টাইল তো হবেই, সঙ্গে দেখাবেও কমবয়সি৷

খুব ঠান্ডা না পড়লেও পোশাকের সঙ্গে মানানসই একটা স্কার্ফ কিনে ফেলা আমাদের অনেকের অভ্যাস৷ স্কার্ফের নকশা আরও চটকদার করে তোলে ভাবলে, সে ধারণা সরান৷ বরং, স্কার্ফ জড়ানো খুব পুরনো ফ্যাশান। স্কারফ ঝোলালে আপনার চেহারায় ভারী ভাব আনে আর বয়সও অনেক বেশি দেখায়৷

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

কোনগুলো শিশু নির্যাতন এবং কিভাবে এর বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানো যায়। জানাচ্ছেন শিশু অধিকার বিশেষজ্ঞ সত্য গোপাল দে।