নয়াদিল্লি: আবারও ফসল কেটে নেওয়ার পর অবশিষ্টাংশ জ্বালিয়ে দেওয়ার ধুম পড়ে গিয়েছে পঞ্জাবের বিভিন্ন এলাকায়। এই ঘটনায় ফের ব্যাপক বায় দূষণের আশঙ্কায় পরিবেশবিদরা। পঞ্জাবের পাতিয়ালা, অমৃতসর, তরণতারণ-সহ বেশ কয়েকটি এলাকায় ফসলের অবশিষ্টাংশ মাঠেই জ্বালিয়ে দিচ্ছেন কৃষকরা। ফসলের অবশিষ্টাংশ তোলার খরচ জোগানোর সামর্থ্য নেই বলেই বাধ্য হয়েই তাঁরা এই সিদ্ধান্ত নিচ্ছেন বলে জানিয়েছেন কৃষকরা।

কেন্দ্রের নয়া কৃষি বিলের প্রতিবাদে দেশজুড়ে প্রতিবাদ-বিক্ষোভ চলছে। বিশেষত পঞ্জাবে এই বিক্ষোভ ব্যাপক আকার নিয়েছে। গত কয়েকদিনে রাজ্যের বিভিন্ন এলাকায় পথে নেমে কেন্দ্রের বিরুদ্ধে সুর চড়িয়েছেন কৃষকরা।

অমৃতসরের বিভিন্ন এলাকায় কেন্দ্রের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করতে গিয়ে রেল রোকো অভিযানেও সামিল হতে দেখা গিয়েছে কৃষকদের। তবে এবার ফের মাঠে ফসল কেটে নেওয়ার পর অবশিষ্টাংশ জ্বালিয়ে দেওয়ার ধুম পড়ে গিয়েছে পঞ্জাবের বিভিন্ন এলাকায়।

ফসলের অবশিষ্টাংশ জ্বালানোর জেরে বায়ু দূষণ বাড়ছে। ঘোর উদ্বেগে দিল্লির সরকারও। প্রতি বছর পঞ্জাব, হরিয়ানা, উত্তরপ্রদশের বিভিন্ন এলাকায় ফসলের অবশিষ্টাংশ মাঠে জ্বালানোর জেরে বায়ু দূষণে ভোগান্তি বাড়ে দিল্লির।

কৃষকদের একাংশের এই প্রবণতা রুখতে আদালতে মামলাও হয়েছে। কোনওভাবেই মাঠে ফসল জ্বালানো যাবে না বেল নির্দেশ দিয়েছে আদালতও। রাজ্যগুলিকেও অভিযোগ এলেই প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে নির্দেশ দিয়েছে আদালত।

তবে এবার নয়া কৃষি বিল নিয়ে কয়েকদিন ধরেই প্রতিবাদে সরব হয়েছে কৃষক সমাজ। রাজ্যে-রাজ্যে চলছে বিক্ষোভ-আন্দোলন। পঞ্জাবে কৃষকদের বিক্ষোভ চরম আকার নিয়েছে। এবার ফের সরকারি নির্দেশ উপেতক্ষা করে মাঠেই ফসলের অবশিষ্টাংশ জ্বালিয়ে দিতে শুরু করেছেন এক শ্রেণির কৃষক।

ফসলের অবশিষ্টাংশ তোলার খরচ জোগানোর সামর্থ্য নেই বলে বাধ্য হয়েই তাঁরা এই সিদ্ধান্ত নিচ্ছেন বলে জানিয়েছেন কৃষকরা। পঞ্জাবের পাতিয়ালা, অমৃতসর, তরণতারণ-সহ বেশ কয়েকটি এলাকায় কৃষি জমিতে আগুন জ্বালানোর ছবি প্রকাশ্যে এসেছে।

প্রশ্ন অনেক-এর বিশেষ পর্ব 'দশভূজা'য় মুখোমুখি ঝুলন গোস্বামী।