নয়াদিল্লি: টেস্ট ক্রিকেট থেকে গোটা টস ব্যবস্থাটাই তুলে দেওয়া উচিত, তাহলে অ্যাওয়ে দলগুলো যদি একটি সুবিধা পায়। ভারত সফরে এসে টেস্ট সিরিজে হোয়াইটওয়াশ হওয়ার পর এমনই দাবি জানিয়েছিলেন দক্ষিণ আফ্রিকা অধিনায়ক ফাফ ডু’প্লেসি। আর এবার ভারতের বিরুদ্ধে টেস্ট সিরিজ হারের হাস্যকর কারণ খাড়া করে সোশ্যাল মিডিয়ায় ট্রোল হলেন তিনি।

উল্লেখ্য, ভারত সফরে সদ্য সমাপ্ত টেস্ট সিরিজের তিনটি ম্যাচেই টস হারতে হয়েছিল দক্ষিণ আফ্রিকাকে। আর তিনটি ম্যাচেই টস জিতে প্রথমে ব্যাট করে বিপক্ষকে রানের বোঝা চাপিয়ে দিয়েছিল ভারতীয় দিল। ভাইজ্যাকে প্রথম ইনিংসে ভারতের প্রথম ইনিংসে ৫০২ রানের জবাবে ওপেনার ডিন এলগার ও কুইন্টন ডি’ককের শতরানে ভারতকে কিছুটা হলেও লড়াই ছুঁড়ে দিয়েছিল প্রোটিয়ারা। কিন্তু পুণে ও রাঁচিতে যথাক্রমে দ্বিতীয় ও তৃতীয় টেস্টের স্কোরকার্ড কার্বনকপিই বলা যায়।

আরও পড়ুন: টেস্টে আর উইকেটের পিছনে দাঁড়াবেন না মুশফিকুর

আর এই প্রসঙ্গে বলতে গিয়ে একটি গ্লোবাল ক্রিকেট ওয়েবসাইটকে ডু’প্লেসি বলেন, ‘প্রত্যেক টেস্ট ম্যাচে ওরা প্রথমে ব্যাট করত, ৫০০’র উপর রান করত। এরপর দ্বিতীয়দিন অন্ধকার নামলেই ইনিংস ডিক্লেয়ার করে দিত। শেষবেলায় আমাদের তিন উইকেট তুলে নিত। স্বাভাবিকভাবেই তৃতীয়দিনের শুরুতে আমরা চাপে পড়ে যেতাম।’ ডু’প্লেসি আরও বলেন, ‘এ যেন কপি এবং পেস্ট। প্রতি ম্যাচেই একই ঘটনা ঘটত।’ প্রসঙ্গত রাঁচিতে টসভাগ্য বদলাতে প্লেসি ‘প্রক্সি অধিনায়ক’ হিসেবে তেম্বা বাভুমাকে পাঠালেও লাভের লাভ কিছু হয়নি। রাঁচিতে টস হেরে এশিয়ার মাটিতে টানা ১০টি টেস্ট ম্যাচে টস হারের নজির গড়ে দক্ষিণ আফ্রিকা।

আরও পড়ুন: রেকর্ড জয়ে সুইস ইন্ডোরসের ফাইনালে ফেডেরার

আর প্রত্যাশামাফিক পারফরম্যান্স না করতে পেরে প্রোটিয়া অধিনায়কের এহেন হাস্যকর যুক্তি স্বাভাবিকভাবেই ভালোচোখে নেয়নি নেটিজেনরা। কেউ বলছেন, ‘অধিনায়ক হিসেবে দায়িত্বপালনে ব্যর্থ। প্লেসির এখন অজুহাতই ভরসা।’ তো কেউ লিখেছেন, ‘দলের অধিনায়কের এমন মানসিকতা হলে দল কোনওদিন ঘুরে দাঁড়াতে পারবে না।’