ওয়েলিংটন: নিউজিল্যান্ড-অস্ট্রেলিয়া সিরিজের শেষ তিনটি টি-২০ ম্যাচে দর্শকদের প্রবেশের অনুমতি দিল না নিউজিল্যান্ড ক্রিকেট বোর্ড৷ পাশাপাশি কোভিড-১৯ নকডাউনের কারণে অকল্যান্ড থেকে সরিয়ে নিয়ে যাওয়া হল ম্যাচ৷

সোমবার নিউজিল্যান্ড ক্রিকেট বোর্ডের তরফে এক বিবৃতিতে এমনটা জানানো হয়, অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে পাঁচ ম্যাচের টি-২০ সিরিজের শেষ তিনটি ম্যাচ ওয়েলিংটনে সরিয়ে নিয়ে যাওয়া হয়েছে৷ সিরিজের শেষ তিনটি ম্যাচই হবে এখানে৷ কোভিড-১৯ প্যানডেমিকের কারণে সিরিজের বাকি ম্যাচগুলি হবে ক্লোজড ডোর স্টেডিয়ামে৷

দেশের সবচেয়ে বড় শহর অকল্যান্ডে রবিবার থেকে অন্তত এক সপ্তাহের জন্য লকডাউন ঘোষণা করেছে নিউজিল্যান্ড সরকার৷ অকল্যান্ডে কোভিড-১৯ পজিটিভ কেস ধরা পরায় এই সিদ্ধান্ত৷ এর ফলে অস্ট্রেলিয়া-নিউজিল্যান্ডের মধ্যে চতুর্থ টি-২০ ম্যাচটি অকল্যান্ড থেকে সরিয়ে নিয়ে যাওয়া হয়েছে ওয়েলিংটনে৷ শুধু তাই নয়, অকল্যান্ড বেস কিউয়ি ক্রিকেটাররা কোভিড-১৯ টেস্টের পরীক্ষায় নেগেটিভ আসার পরই সিরিজের বাকি ম্যাচগুলি খেলার ছাড়পত্র পাবেন৷ সিরিজের শেষ তিনটি টি-২০ ম্যাচ হবে দর্শকশূন্য স্টেডিয়ামে ৩ থেকে ৭ মার্চ৷

অজি অল-রাউন্ডার অ্যাশটন আগর নিউজিল্যান্ড ক্রিকেট বোর্ডের এই সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়েছেন৷ স্বাস্থ্য ও নিরাপত্তার কথা ভেবে এটা একদম ঠিক সিদ্ধান্ত বলেও মনে করেন তিনি৷ আগর বলেন, ‘ওরা আমাদের নিশ্চিত করেছে প্লেয়ারদের মানসিক ও শারীরিক কথা ভেবে এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে৷ এটা ঠিক সিদ্ধান্ত৷’ পাঁচ ম্যাচের সিরিজে ক্রাইশ্চচার্চ ও ডুনেডিনে প্রথম দু’টি ম্যাচ জিতে ২-০ এগিয়ে রয়েছে নিউজিল্যান্ড৷ সুতরাং অস্ট্রেলিয়াকে সিরিজ জিততে হলে, বাকি তিনটি ম্যাচ জিততে হবে অজিদের৷

অগর আরও বলেন, ‘হোমগ্রাউন্ডে দর্শকদের সুবিধা সবসময় পেয়ে থাকে হোম টিম৷ এখনও পর্যন্ত যেটি হয়ে এসেছে৷ কিন্তু বাকি তিনটি ম্যাচে সেই সুবিধা পাবে না নিউজিল্যান্ড৷ তবে নিউজিল্যান্ডে বেশ মজাদার দর্শক মাঠে আসে৷ মাঠের পরিবেশটা অন্য রকম হয়৷’ অস্ট্রেলিয়াকে সিরিজ বাঁচাতে হলে পরের ম্যাচে জিততেই হবে অ্যারন ফিঞ্চদের৷ সিরিদের তৃতীয় ম্যাচটি হবে বুধবার ওয়েলিংটনে৷

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।