স্টাফ রিপোর্টার, বাঁকুড়া: পারিবারিক অশান্তির জেরে বাবা-মাকে হাঁসুয়া দিয়ে খুনের চেষ্টার অভিযোগ উঠল গুণধর ছেলের বিরুদ্ধে। জানা গিয়েছে, মূলত পারিবারিক সম্পত্তি নিয়ে বিবাদের জেরে এই কাণ্ড ঘটিয়েছে অভিযুক্ত যুবক।

শনিবার সকালে ঘটনাটি ঘটেছে, বাঁকুড়া জেলার ইন্দাস থানা এলাকার বামনিয়া গ্রামে। অভিযুক্ত যুবকের নাম প্রশান্ত ভৌমিক। পুলিশ অভিযুক্তকে আটক করেছে। এদিকে দোষীর দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তির দাবি জানিয়ে চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়েছে এলাকাবাসীর মধ্যে।

স্থানীয় সূত্রে খবর, ইন্দাসের বামনিয়া গ্রামের প্রফুল্ল ভৌমিক ও বীনারাণী ভৌমিকের তিন সন্তান রয়েছে। তাদের ছোটো ছেলে পরিতোষ ভৌমিক কয়েক বছর আগে এক ভিন জাতের মেয়েকে ভালোবেসে বিয়ে করেন। প্রথম দিকে বিষয়টি বাবা-মা মেনে না নিলেও পরে বিষয়টি মেনে নেন। এই নিয়েই বড় ছেলে প্রশান্ত ভৌমিকের সঙ্গে তার বাবা মায়ের প্রায়শই ঝামেলা লেগে থাকত। এমনকি ছোটো ছেলে পরিতোষ ভৌমিককে পারিবারিক সম্পত্তি থেকে বঞ্চিত করার দাবিও জানাতে থাকে বড় দাদা প্রশান্ত ভৌমিক।

জানা গিয়েছে, বিষয়টি মানতে রাজি না হওয়ায় প্রায়শই বাবা মাকে সে অত্যাচার করত বলে অভিযোগ। এদিন ফের এই নিয়ে বচসা শুরু হলে বড় ছেলে প্রশান্ত ভৌমিক একটি হাঁসুয়া নিয়ে নিজের বাবা মায়ের উপর এলোপাথাড়ি কোপ মারতে শুরু করে। শুধু তাই নয়, হাঁসুয়ার কোপে মা বীনারাণীর দু’টি হাত কেটে ফেলে বড় ছেলে। এমনকি বাবা প্রফুল্ল ভৌমিকও এই ঘটনায় গুরুতর আহত হন। পরে স্থানীয় বাসিন্দাদের চেষ্টায় পুলিশ আহত দু’জনকে ইন্দাস ব্লক প্রাথমিক হাসপাতালে ভরতি করেন। পরে তাদের বর্ধমান মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হয়। পুলিশ অভিযুক্ত বড় ছেলে প্রশান্ত ভৌমিককে আটক করেছে। সবদিক খতিয়ে দেখে ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে ইন্দাস থানার পুলিশ।