তমলুক: শিশু মৃত্যুর ঘটনায় রণক্ষেত্রের চেহারা নিল পাঁশকুড়া সুপার স্পেশালিটি হাসপাতাল৷ শিশুর পরিজনেরা হাসপাতালে ব্যাপক ভাঙচুর চালায়৷ দীর্ঘক্ষণ চলে বিক্ষোভ৷ পরে পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে৷ পরিজনের অভিযোগ, চিকিৎসায় গাফিলতির জেরে মৃত্যু হয় শিশুটির৷

শুক্রবার দুপুর তিনটে নাগাদ পাঁশকুড়া সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রী জেসমিনারা বিবিকে ভরতি করান মেচেদার বাড়বহলা গ্রামের বাসিন্দা সানোয়ার খান৷ চিকিৎসকে তারা জানান, সিজার করার কোনও দরকার নেই৷ নর্মাল ডেলিভারিতে সন্তানের জন্ম হবে৷ কিন্তু রবিবার রাতে জেসমিনারার হঠাৎ প্রসব যন্ত্রণা শুরু হয়৷ পরিবারের অভিযোগ, কর্তব্যরত নার্সদের সেই কথা জানানো হলেও তারা কোনও গুরুত্ব দিতে চাননি৷

সোমবার জেসমিনারা অবস্থা আরও খারাপ হতে শুরু করে৷ তখন নার্সরা চিকিৎসকে খবর দেন৷ চিকিৎসক এসে তড়িঘড়ি অন্তঃসত্ত্বার সিজার করেন৷ প্রসবের পর জেসমিনারার পুত্র সন্তান হয়৷ কিন্তু কিছু সময় পরেই মৃত্যু হয় সেই সন্তানের৷ পরিবারের লোকেরা খবর পেয়ে দুপুর নাগাদ হাসপাতালে এসে চড়াও হয়। উত্তেজিত পরিজনেরা ভাঙচুর চালায় হাসপাতালে দরজায় ও কাঁচে। দীর্ঘক্ষণ ধরে চলে বিক্ষোভ। পরে পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।