নয়াদিল্লি: সেনাকে রাজনৈতিক প্রচার থেকে দূরে রাখার আর্জি জানিয়ে রাষ্ট্রপতিকে চিঠি দিয়েছেন প্রাক্তন সেনাকর্তারা৷ মিডিয়ার দৌলতে চর্তুদিকে ছড়িয়ে পড়ে এই খবর৷ সেই ঘটনায় নয়া মোড়৷ ১৮০ ডিগ্রি ঘুরে প্রাক্তন সেনাকর্তারা জানিয়েছেন, এমন কোনও চিঠিই তারা রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দকে দেননি৷ অপরদিকে রাষ্ট্রপতি ভবন থেকেও এমন কোন চিঠি প্রাপ্তির কথা স্বীকার করা হয়নি৷ সংবাদসংস্থা এএনআইকে উদ্ধৃত করে এমনটাই জানিয়েছে জি নিউজ৷

আরও পড়ুন: সেনাকে রাজনৈতিক প্রচার থেকে দূরে রাখা হোক, রাষ্ট্রপতিকে চিঠি প্রাক্তন সেনাকর্তাদের

মিডিয়া মারফত প্রথম জানা যায়, তিনবাহিনীর প্রাক্তন ৮ সেনাপ্রধান সহ ১৫০ জনের সই রয়েছে ওই চিঠিতে৷ সেখানে বলা হয়েছে, রাজনৈতিক স্বার্থে সেনাবাহিনীর ব্যবহার বন্ধ করতে হবে৷ নির্বাচনী প্রচার থেকে সেনাকে দুরে রাখা হোক৷ তারপরই এই নিয়ে মুখ খোলেন প্রাক্তন সেনাকর্তারা৷ প্রাক্তন জেনারেল সুনীথ ফ্রান্সিস রডরিগস চিঠিতে সই করার কথা অস্বীকার করেন৷ অথচ রাষ্ট্রপতিকে লেখা চিঠিতে সবার আগে তাঁর সই রয়েছে৷

আরও পড়ুন: ‘ভোট না দিলে..’, সংখ্যালঘু ভোটারদের চমকানোর অভিযোগ মানেকার বিরুদ্ধে

তাঁর দাবি, খবরটি ভুয়ো৷ বিস্ময় প্রকাশ করে জানিয়েছেন, সেনা সবসময় রাজনীতি থেকে দুরে থাকে৷ সেই অবস্থান থেকে সরে আসা আর সম্ভবও নয়৷ কে বা কারা এই কাণ্ডটি ঘটিয়েছেন তা নিয়ে সম্পূর্ণ অন্ধকারে তিনি৷ তবে ফেক নিউজের প্রকৃষ্ট উদাহরণ এই খবরটি৷ এয়ার মার্শাল নির্মল চন্দ্র সুরিও এক কথা জানান৷ তাঁর বক্তব্য, চিঠিতে যা লেখা হয়েছে তার সঙ্গে একমত নন৷ সম্পূর্ণ ভুল ব্যাখ্যা করা হয়েছে৷