স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: সল্টলেকে বসে আমেরিকায় ‘প্রতারণা’৷ প্রতারিত হয়েছেন বহু মার্কিন নাগরিক৷ কয়েক কোটি টাকার প্রতারণার অভিযোগ৷ বিধাননগর পুলিশের সাইবার ক্রাইম শাখার পুলিশ এক মহিলাসহ ৫ জনকে গ্রেফতার করেছে৷ সিল করে দেওয়া হয়েছে ভুয়ো কল সেন্টারটি৷

পুলিশ সূত্রে খবর,সল্টলেক সেক্টর ফাইভে গড়ে উঠেছিল একটি ভুয়ো ইন্টারন্যাশনাল কল সেন্টার৷ ট্যাক্স কনসালটেন্সি নামে একটি ভুয়ো সংস্থা খোলা হয়৷ সেখানে বসেই ফোন করা হত মার্কিন নাগরিকদের৷ কর মিটিয়ে দেওয়ার ব্যবস্থা করে দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়ে মোটা টাকা দাবি করা হত৷ প্রতারকদের পাতা ফাঁদে পা দিয়ে প্রতারিত হয়েছেন বহু মার্কিন নাগরিক৷

বিধাননগর পুলিশ কমিশনারেটের ডিসি (সদর)কুণাল আগরওয়াল জানান,সল্টলেকে বসে মার্কিনীদের প্রতারণার অভিযোগে একজন মহিলাসহ ৫ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে৷ এরা দিল্লি-মুম্বই-আহমেদাবাদের বাসিন্দা৷ ইন্টারন্যাশনাল ট্যাক্স কনসালটেন্সি নামে একটি ভুয়ো কল সেন্টার খুলে চলছিল প্রতারণা৷ ওই সংস্থা থেকে বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে হার্ড ডিস্ক, মোবাইল ফোন, ল্যাপটপ,বিদেশিদের নামের তালিকা,প্রচুর মেইল আইডি৷ এবং মার্কিন নাগরিকদের ডেটাবেস এবং উত্তর আমেরিকার ভিওআইপি নম্বর ব্যবহার করার বিভিন্ন প্রমাণ পাওয়া যায়। সিল করে দেওয়া হয়েছে ভুয়ো অফিসটি৷

অভিযোগের ভিত্তিতে তদন্তে নামে বিধাননগর পুলিশের সাইবার ক্রাইম থানা৷ তদন্তে নেমে পুলিশ জানতে পারে, ভুয়ো কল সেন্টারের মূল পান্ডা মুম্বইয়ের বাসিন্দা তৌহিদ ওয়াহিদ খান(২৫)৷ পুলিশ গোপন সূত্রে খবর পেয়ে, গতকাল বেকবাগানের একটি হোটেলে হানা দেয় পুলিশ৷ সেখান থেকে হাতেনাতে ধরা হয় তৌহিদকে৷ তাকে জেরা করে বাকিদের খোঁজ পায় পুলিশ৷ গ্রেফতার করা হয় তাদেরও৷ ধৃতরা হল আহমেদাবাদের প্যাটেল রিচেশ(৩২), মুম্বইয়ের জিনাত রবিন জোসেফ(২৯), দিল্লির সঞ্জয় ভূপতি(২৮) এবং চেম্বুরের আশরাফ গনি(২৮)।