সৌরভ দেব, জলপাইগুড়ি: শ্রমিক নিয়োগকে কেন্দ্র করে সিটু এবং আই এন টি টি ইউ সি-র মধ্যে সংঘর্ষের জেরে বন্ধ হয়ে গেল জলপাইগুড়ির রাজগঞ্জ ব্লকের সিমেন্ট কারখানা। শুক্রবার সকালে কারখানা কর্তৃপক্ষ সাসপেনশন অব ওয়ার্কের নোটিশ ঝুলিয়ে দেন কারখানার গেটে। কর্মহীন হয়ে পড়েন কারখানার প্রায় ৫০ জন শ্রমিক।

ঘটনার সূত্রপাত বৃহস্পতিবার। আই এন টি টি ইউ সি-র কর্মী সমর্থকরা কিছু নতুন শ্রমিককে কারখানায় নিয়োগ করতে গেলে সিটুর সমর্থকদের সঙ্গে বচসায় জড়িয়ে পড়েন। এরপর উভয়পক্ষের মধ্যে মারামারিতে তিনজন আহত হন। সিটুর জেলা কমিটির সদস্য কৃষন সেন জানান, আই এন টি টি ইউ সি-র গুণ্ডামির জন্য মালিকপক্ষ কারখানা বন্ধ করতে বাধ্য হয়েছেন। পালটা সিটুর কারখানার ইউনিট নেতা রাজু রায় অভিযোগ করে বলেন, সিমেন্ট কারখানায় মোট ২৭ জন শ্রমিকের মধ্যে  সিটুর সাতজন, আই এন টি টি ইউ সি-র ২০ জন ছিল। কিন্তু চারদিন আগে আই এন টি টি ইউ সি-র ২০ জন সদস্য সিটুতে যোগদান করেন। বৃহস্পতিবার সিটুর ১৭ জন শ্রমিক দুপুরে খাবার খেতে যান। ফিরে এসে দেখেন আই এন টি টি ইউ সি জোর করে আরও ১৭ জন নতুন শ্রমিককে কাজে ঢুকিয়েছে। এই ঘটনার বিরোধীতা করলে আই এন টি টি ইউ সি সমর্থকরা সিটুর কর্মীদের মারধর করেন বলে অভিযোগ।

আই এন এন টি টি ইউ সি-র নেতা মুশারফ হোসেনের অভিযোগ, কারখানা কর্তৃপক্ষের অনুমতি পেয়েই তারা ১৭ জন নতুন শ্রমিককে কাজে বৃহস্পতিবার নিয়োগ করেন। কিন্তু সিটু সমর্থকরা তাদের কারখানায় ঢুকতে বাধা দেন এবং ম্যানেজারকে মারধর করেন। এই অশন্তির জন্যই মালিকপক্ষ শুক্রবার কারখানা বন্ধ করে দেন। এর জন্য সিটু সম্পূর্নভাবে দায়ী বলে মোশারফ হোসেন দাবি করেছেন।

আরও খবর-

স্কুলের গেটে তালা ঝোলাল গ্রামবাসীরা

কেরোসিন তেল ঢেলে আত্মহত্যার চেষ্টা অপমানিত ধর্ষিতার

প্রাথমিকে শিক্ষক নিয়োগের ফলপ্রকাশের দাবিতে আমরণ অনশন

মধুচক্রে গ্রেফতার দুই মহিলা সহ মোট আটজন

স্বাধীনতা আর মাত্র কয়েক প্রহরের অপেক্ষা