নয়াদিল্লি: বিভিন্ন দেশে বিভিন্ন পরিস্থিতিতে সামলেছেন দলের ব্যাটিং লাইন-আপের মিডল অর্ডার। ৬৫টি টেস্টে ম্যাচে টেস্ট ক্রিকেটে তাঁর সংগৃহীত রানসংখ্যা ৪ হাজারেরও বেশি। নামের পাশে ১১টি শতরান নিয়ে লাল বলের ক্রিকেটে ভারতীয় ব্যাটিং লাইন আপের অন্যতম স্তম্ভ আজিঙ্কা রাহানে। স্বাভাবিকভাবেই বিদেশের মাটিতে পেস সহায়ক উইকেটে মুখোমুখি হয়েছেন তাবড়-তাবড় পেস বোলারদের। এদের মধ্যে সবচেয়ে কঠিন কাকে সামলানো?

টেস্টে কোহলির ডেপুটি জানালেন ইংল্যান্ডের মাটিতে ইংরেজ স্পিডস্টার জেমস অ্যান্ডারসনকে সামলানোই সবচেয়ে চ্যালেঞ্জিং। রাহানের ব্যক্তিগত মত, আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে কোনও বোলারকে সামলানোই সহজ ব্যাপার নয়। তবে ইংল্যান্ডের আবহাওয়ায় অ্যান্ডারসনকে ফেস করা সবচেয়ে কঠিন। কারণ হিসেবে রাহানে বলেছেন, ‘ইংল্যান্ডের আবহাওয়া ওর দারুণ রপ্ত। তাই ইংল্যান্ডের মাটিতে অ্যান্দারসনকে এস করা সবচেয়ে চ্যালেঞ্জের।’

এছাড়াও সম্প্রতি ইনস্টাচ্যাট লাইভ সেশনে লকডাউন পিরিয়ডে মানসিকভাবে নিজেকে সুস্থ রাখার কথা জানান রাহানে। লকডাউন পিরিয়ডে রাহানের সময় কাটছে কীভাবে? উত্তরে কোহলির ডেপুটির জানান, ‘এই পরিস্থিতিতে মানসিকভাবে ইতিবাচক থাকাটা জরুরি। মানসিকভাবে আমার নিজের ব্যাটিং ভিসুয়ালাইজ করছি। আন্তর্জাতিক অ্যাথলিট এবং একজন ক্রিকেটার হিসেবে মানসিকভাবে ফিট থাকা জরুরি।’

একইসঙ্গে ইনস্টাচ্যাট লাইভ সেশনে আরেকটি অজানা বিষয়ের দিকেও অনুরাগীদের দৃষ্টিপাত করেন রাহানে। টেস্ট ক্রিকেটে ভারতের সহ-অধিনায়ক জানান জুডোতে তাঁর সংগ্রহে রয়েছে ব্ল্যাক বেল্ট। একইসঙ্গে রাহানের কথায়, ‘বর্তমান পরিস্থিতি অবশ্যই ভীষণ কষ্টের। কিন্তু এর ইতিবাচক দিকও আছে। আমি পরিবার ও মেয়ের সঙ্গে সময় কাটাতে পারছি। মেয়ের বয়স মাত্র সাড়ে ছ’মাস। আমার সৌভাগ্য যে ওকে সময় দিতে পারছি।’ একইসঙ্গে তাঁর রোল মডেল কিংবদন্তি টেনিস প্লেয়ার রজার ফেডেরারের সঙ্গে ২০১৫ অস্ট্রেলিয়ান ওপেনে সাক্ষাৎ হওয়াটাকে তাঁর জীবনের অন্যতম ফ্যানবয় মোমেন্ট হিসেবে অভিহিত করেন তিনি।

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ