Facial fat not an issue

কলকাতা ২৪x৭: ছোট থেকেই রিধিমা একটু গোলগাল। তাই তার মুখটাও একটু ভারী। রয়েছে ডাবল চিন। তাই “প্রেম করবি কী করে?”, “বিয়ে হবে না” এমন অনেক টিটকিরি শুনতে শুনতেই সে বড়ো হয়েছে। আবার অনেক সময়ে মেকআপ করতে গিয়ে ভারী গাল ঢাকতে অনেক সময়ও লাগতো। তবে বড়ো হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে তার কাছে এগুলো আর লজ্জার বিষয় নয় বা ভাবায় না।

কিন্তু একদিন ওর বন্ধু রেহানা ওকে জানালো কিছু স্বাস্থ্যকর উপায়। এতে শুধু যে রিধিমার ডাবল চিনের সমস্যা মিটবে তা নয়, উপরন্তু বাড়িতে বসেই মুখের ব্যায়ামও হবে। ব্যাস, বন্ধুর কথায় মুহূর্তে রাজি সে। কিন্তু সমস্যা হলো কীভাবে সে করবে এই ব্যায়াম? শেষে উপায় খুঁজে বের করলো সে ও বন্ধু মিলেই। ইউটিউব দেখে ও এক বন্ধুর ডাক্তার দিদির পরামর্শ মেনে ও শুরু করলো ব্যায়াম। আপনারাও জানতে চান সেই টিপস?

১. ঠোঁট চেপে বন্ধ করে জোরে হাসুন। সেই সময়ে দুই হাতের তালু দিয়ে গালদুটিকে উপরের দিকে ঠেলে তুলুন ও সেই অবস্থায় ধরে রাখুন। মনে মনে ২০ সেকেন্ড গুনুন। পাঁচবার রিপিট করতে হবে এটা।

২. মুখ চেপে বন্ধ করে নীচের ঠোঁটকে ঠেলে উপরের দিকে তুলুন আর সেই সঙ্গে চিবুকও উঠবে উপরে। যতটা সম্ভব উঁচু করার চেষ্টা করুন ও সেটা ধরে রাখুন।

৩. মুখ বন্ধ রেখে গাল দুটি ফুলিয়ে বাতাস ভরে নিন গালে। এবার ৪০-৪৫ সেকেন্ড মতো রেখে আস্তে আস্তে করে বাতাস ত্যাগ করুন। এটাও রিপিট করুন।

৪. মুখ বন্ধ করে আপনার জিভটাকে মুখের ভিতরে গোল করে একপাশ থেকে অন্যপাশে ঘোরাতে থাকুন। এভাবেই দশবার ডানপাশ থেকে বাঁ পাশে আর দশবার বাঁ দিক থেকে ডানদিকে ঘোরালে একটি সেট সম্পূর্ণ হবে। এরকমভাবে ৫ বার করুন।

৫. মুখ বন্ধ করে গালদুটো ভিতরদিকে টেনে ধরে থাকুন। ঠিক যেমন পাউট করার পোজ হয় সেরকম হবে। ধীরে ধীরে দশ সেকেন্ড অবধি গুনে ছেড়ে দিন। এভাবে পাঁচবার পুনরাবৃত্তি করুন।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.