ওয়াশিংটন: মার্কিন রাষ্ট্রপতি ডোনাল্ড ট্রাম্পের ‘বিভ্রান্তিকর পোস্ট’এর বিরুদ্ধে এবার ব্যবস্থা নিতে চলেছে ফেসবুক ও টুইটার কর্তৃপক্ষ। কোভিড-১৯ নিয়ে প্রেসিডেন্টের শেয়ার করা তথ্যে তাঁদের বিধি লঙ্ঘন হয়েছে বলে মনে করছে জুকেরবার্গের সংস্থা। ট্রাম্প জানিয়েছিলেন কোভিড ১৯ ফ্লু-এর মতোই।

ইতিমধ্যেই ফেসবুক ট্রাম্পের ওই পোস্টটিকে ডাউন করে দিয়েছে। তবে তার আগেই ওই পোস্টটি ২৬,০০০ বার শেয়ার করা হয়েছে বলে দেখাচ্ছে ফেসবুকের মেট্রিক টুল। সংস্থার এক মুখপাত্র রয়টার্সকে জানিয়েছেন, “আমরা COVID-19 সংক্রান্ত যাবতীয় ভুল তথ্য মুছে ফেলি।”

সাধারণত ফেসবুক রাজনীতিবিদদের থার্ড পার্টি ফ্যাক্ট চেকিং প্রোগ্রাম থেকে ছাড় দেয়। আবার মার্কিন রাষ্ট্রপতির পোস্টের বিরুদ্ধেও খুব কম পদক্ষেপ নিতে দেখা যায় ফেসবুককে। কিন্তু এবার সেটাই করল বিশ্বের বৃহত্তম সোশ্যাল মিডিয়া সংস্থা।

তবে এই প্রথম না, এর আগেও অগস্ট মাসে করোনভাইরাস নিয়ে ভুল তথ্য দেওয়ার জন্য ট্রাম্পের পোস্ট সরিয়ে দিয়েছিল ফেসবুক। সেই পোস্টে একটি ভিডিও শেয়ার করে ট্রাম্প জানিয়েছিলেন, শিশুরা প্রায় করোনা অনাক্রম্য

উল্লেখ্য, চার দিনের জরুরি চিকিত্সার পরে সোমবার হাসপাতাল থেকে হোয়াইট হাউসে ফিরেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। হোয়াইট হাউসে ফিরেই নিজের মাস্ক খুলে ফেলে তিনি জানান, খুব শীঘ্রই নির্বাচনী প্রচারে অংশ নেবেন। পাশাপাশি ট্রাম্প ট্যুইট করেন ‘করোনাকে নিয়ে ভয় পাবেন না।’

করোনা হওয়ার পর থেকেই একাধিকবার বিতর্কে জানিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট। অভিযোগ ডোনাল্ড ট্রাম্প করোনায় আক্রান্ত হওয়ার কথা জানতে পেরেও তা গোপন করতে চেয়েছিলেন। মার্কিন দৈনিক ওয়াল স্ট্রিট জার্নাল এমন খবর জানিয়েছে। ওই রিপোর্টে উল্লেখ, প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প তাঁর করোনা ভাইরাস পজিটিভ হওয়ার রিপোর্ট বৃহস্পতিবার হাতে পেয়েছিলেন। তখন তিনি বিষয়টি গোপন করতে চেয়েছিলেন।

এছাড়াও সামনে নির্বাচনের কথা মাথায় রেখে সমর্থকদের চাঙ্গা রাখার জন্য রবিবার ওয়াল্টার রিড হাসপাতালের স্যুট থেকে কিছু সময়ের জন্য বাইরে বেরিয়ে এসে মোটর গাড়িতে উঠে হাত নাড়ান ট্রাম্প। একেবারে প্রটোকল ভেঙে হাসপাতাল থেকে বেরিয়ে আসেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট।

এইভাবে খোদ প্রেসিডেন্ট করোনা নিয়ম ভঙ্গ করায় ক্ষুব্ধ চিকিৎসকরা। শুধু ক্ষুব্ধ হওয়া নয় প্রকাশ্যে ক্ষোভ উগরে দিয়েছেন বেশ কয়েকজন ডাক্তাররা।ট্রাম্পের এহেন কাজে চমকে গিয়েছেন স্থানীয় মানুষজনও। কারণ ট্রাম্পের এহেন কর্মসূচির কোনও পরিকল্পনা ছিল না। ফলে হঠাত এতগুলি গাড়ি নিয়ে করোনা আক্রান্ত ট্রাম্পের শোভাযাত্রা দেখে চমকে যান অনেকেই।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

কোনগুলো শিশু নির্যাতন এবং কিভাবে এর বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানো যায়। জানাচ্ছেন শিশু অধিকার বিশেষজ্ঞ সত্য গোপাল দে।